‘পশ্চিমবঙ্গ’ হয়ে যাচ্ছে ‘বাংলা’

প্রথম সকাল ডটকম ডেস্ক: ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের নাম পাল্টে ‘বাংলা’ রাখার পক্ষে সম্মতি দিয়েছে বিধানসভা। আজ বৃহস্পতিবার রাজ্যের সব দল নাম পরিবর্তনের বিলে অনুমোদন দিয়েছে। কেন্দ্র অনুমোদন দিলেই এখন থেকে পশ্চিমবঙ্গের সরকারি নাম হবে ‘বাংলা’।

ভারতের জি-নিউজের এক প্রতিবেদনে ‍বলা হয়, রাজ্যের নাম বদলের বিষয়ে আজ বিধানসভায় সর্বসম্মতভাবে সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে। বিধানসভার বাদল অধিবেশনে রাজ্যের নাম পরিবর্তনের প্রস্তাবটি উত্থাপন করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে বাংলা, ইংরেজি, হিন্দি-এই তিন ভাষায় রাজ্যের তিনরকম নাম লেখা হয়ে থাকে। বাংলায় রাজ্যের নাম লেখা হয় ‘পশ্চিমবঙ্গ’, ইংরেজিতে ‘ওয়েস্ট বেঙ্গল’ এবং হিন্দিতে ‘বাঙ্গাল’।

তাই  কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে রাজ্যের একটি নাম নির্দিষ্ট করতে বলা হয়েছে। সেই নাম-ই প্রত্যেক ভাষায় ব্যবহার করা হবে। গোটা বিশ্বে পঞ্চম বৃহত্তম ভাষা ‘বাংলা’। তাই রাজ্যের নাম পরিবর্তন করে ‘বাংলা’ রাখা প্রাসঙ্গিক। ওই লক্ষ্যেই রাজ্যের নাম ‘বাংলা’ রাখার পক্ষে বিধানসভায় প্রশ্ন উত্থাপন করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

পাশাপাশি তিনি আহ্বান জানান, রাজনৈতিক বিরোধীতা দূরে সরিয়ে রেখে রাজ্যের নাম ‘বাংলা’ রাখতে সবাই যাতে সহমত হন। এর আগে ২০১৬ সালে বাদল অধিবেশনের সময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের নাম ‘বাংলা’ রাখার কথা প্রস্তাব করেছিলেন। এ প্রসঙ্গে উড়িষ্যা, বম্বে ও মাদ্রাজের নাম বদলে সর্বসম্মতিক্রমে ওড়িশা, মুম্বাই ও চেন্নাই করার কথাও উল্লেখ করেন মমতা।

বিধানসভায় সর্বোসম্মতিক্রমে সিদ্ধান্ত নেওয়া হলেও কেন্দ্র চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়ার পরই সরকারিভাবে রাজ্যের নাম পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে।  এর আগে রাজ্যের নাম ইংরেজিতে ওয়েস্ট বেঙ্গলের পরিবর্তে শুধু ‘বেঙ্গল’ ও বাংলায় ‘বাংলা’ করার প্রস্তাব দিয়েছিল নবান্ন। কিন্তু রাজ্যের সেই প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছিল কেন্দ্র।

This website uses cookies.