বড়াইগ্রামে বিদ্যুতের তার টানার অজুহাতে মহাসড়কের লক্ষাধিক টাকার গাছ কর্তন

মো: জাহিদ আলী, (নাটোর): বিদ্যুতের তার টানার অজুহাতে নাটোরের পাবনা-নাটোর মহাসড়কের কদিমচিলানে প্রায় লক্ষাধিক টাকার  ৬টি গাছ কর্তন করা হয়েছে।

গত বুধবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় বড় বড় শিশু, রেন্টি কড়ইসহ ছয়টি গাছ কর্তন করা হয়েছে। যার বাজার মূল্য প্রায় লক্ষাধিক টাকা।

গাছ কাটার কয়েকজন শ্রমিকের সঙ্গে কথা বললে তারা জানান, পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি নাটোর-২ এর ঠিকাদার আব্দুল মালেক এবং প্রকৌশলী মাসুদ রানার নির্দেশে এ গাছ কর্তন করা হচ্ছে।

তবে এলাকাবাসীর মধ্যে কেউ কেউ অভিযোগ করে বলেন ঠিকাদার আব্দুল মালেক ও প্রকৌশলী অসৎ উদ্দেশ্য নিয়েই মহাসড়কের গাছের উপর দিয়ে তার টেনেছেন।

অথচ মাত্র দুই হাত নিচ দিয়ে তার টানলেই গাছ গুলো কাটা লাগতো না। আবার তার অনুমতি না নিয়েই গাছগুলো কর্তন করে আত্মসাতের চেষ্টা করছেন। এ বিষয়ে ঠিকাদার আব্দুল মালেক বলেন আমরা পল্লী বিদ্যুৎ নাটোর-২ এর জেনারেল ম্যানেজার শ্রী নিতাই সরকারের নির্দেশেই গাছ কর্তন করেছি। এটা তো দোষের কিছু নেই।

এ বিষয়ে পল্লী বিদ্যু সমিতি নাটোর-২ এর জেনারেল ম্যানেজার শ্রী নিতাই সরকার বলেন, আমি গাছ কাটার হুকুম দেবার কে। তারা জানিয়েছে কিছু ডাল ছাটা লাগবে। তাই সড়ক ও জনপদ বিভাগের নাটোর শাখার প্রকৌশলীর কাছে মৌখিক অনুমতি নিয়ে কেটে ফেলতে বলেছি। গাছ কাটার কোন প্রশ্নই আসেনা।

এ প্রতিনিধি তাকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলে তিনি সরেজমিনে গিয়ে ব্যবস্থা নেওয়ার আশ^াস দেন। এ বিষয়ে লালপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সাথে কথা হলে তিনি বলেন এটা মহাসড়কের গাছ। এখানে আমার কিছু করার নাই। তারপরেও এ বিষয়ে আমি কতৃপক্ষের সাথে কথা বলছি। এ বিষয়ে সড়ক ও জনপথ বিভাগের নাটোর শাখার প্রকৌশলী আশরাফুল আলম বলেন, আমার কাছে কিছু ডাল কাটার বিষয়ে আলাপ হয়েছে। তবে আমাকে না জানিয়েই তারা গাছ কর্তন করেছে। বিষয়টি সরেজমিনে তদন্ত করে দেখছি।

This website uses cookies.