গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় স্কুল ছাত্রী ধর্ষণ চেষ্টা ঘটনায় ব্যবসায়ী আটক

এম শিমুল খান, (গোপালগঞ্জ): গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলায় ফুসলিয়ে স্কুলছাত্রী ধর্ষণ চেষ্টার ঘটনায় পুলিশ হানিফ ব্যাপারী (৪৫) নামে এক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে।

মঙ্গলবার বিকেলে কোটালীপাড়া থানা পুলিশ উপজেলার রামশীল বাজার থেকে তাকে আটক করে। এ ঘটনায় কোটালীপাড়া থানায় ওই ছাত্রীর পিতা বাদী হয়ে হানিফ ব্যাপারীর বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলা নং-০৫, তারিখ-০৫/০৬/২০১৮।

জানা গেছে, হানিফ ব্যাপারী রামশীল বাজারে ইট বালুর ব্যবসা করেন। তার বাড়ি পার্শবর্তী বরিশাল জেলার আগৈলঝাড়া উপজেলার চান্দগ্রামে। তার পিতার নাম খালেক ব্যাপারী।

ওই স্কুল ছাত্রীর পিতা বলেন, আমার মেয়ে রামশীল আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী। গত রোববার সন্ধ্যায় সে রামশীল গ্রামে আমার বড় ভাইয়ের বাড়ি থেকে ফিরছিলো। রামশীল স্লুইচ গেটের কাছে আসলে তার কাছে থাকা ৩শ’ টাকা হারিয়ে যায।

টাকা খুঁজতে খুঁজতে আমার মেয়ে হানিফের দোকানের সামনে যায়। হানিফ তাকে জিজ্ঞাসা করে তুমি কি খুঁজছো। তখন আমার মেয়ে ৩শ’ টাকা হারিয়ে যাওয়ার কথা বলে। হানিফ তখন বলে, তোমার হারিয়ে যাওয়া টাকা আমি পেয়েছি। আমার কাছে আছে। আমার কথা শুনলে আমি তোমাকে টাকা ফেরৎ দেব।

এ কথা বলে সে আমার মেয়েকে দোকানের পেছনে নিয়ে যায় এবং তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। পরে মেয়ের চিৎকার শুনে আশাপাশের লোকজন এগিয়ে আসেন। তারা আমার মেয়েকে উদ্ধার করে বাড়িতে পৌছে দেয়। এ ব্যাপারে আমি মঙ্গলবার কোটালীপাড়া থানায় মামলা দায়ের করার পর পুলিশ তাকে আটক করে। আমি এ ঘটনার  সুষ্ঠু বিচার চাই।

অভিযুক্ত ব্যবসায়ী হানিফ ব্যাপারী স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণচেষ্টা অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এ ধরনের কোন ঘটনাই ঘটেনি। একটি মহল ফায়দা লুটতে আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে ওই ছাত্রীর পিতাকে দিয়ে মিথ্যা ধর্ষণ চেষ্টা মামলা দিয়েছে।

কোটালীপাড়া থানার ওসি (তদন্ত) মো: মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, অভিযোগ পাওয়ার সাথে সাথে আমি পুলিশ পাঠিয়ে রামশীল বাজার থেকে অভিযুক্ত হানিফ ব্যাপারীকে আটক করে জেল হাজতে প্রেরণ করেছি।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *