নবীগঞ্জে শহরে অভিনব কায়দায় হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি

উত্তম কুমার পাল হিমেল, নবীগঞ্জ (হবিগঞ্জ): নবীগঞ্জের বিভিন্ন হাট বাজারে হাতি দিয়ে চাঁদাবাজি। বিশেষ কওে নবীগঞ্জ বাজারে প্রায়ই এমন চাঁদাবাজির কারণে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন সাধারন ব্যবসায়ীরা।

হাতির চাঁদাবাজি থেকে রক্ষা পাননি নবীগঞ্জ বাজারের ছোট-বড় কোন ব্যবসায়ীরাই।

সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় নবীগঞ্জ শহরের মধ্য বাজার,ওসমানী রোড,শেরপুর সড়ক হাসপাতাল সড়কসহ বিভিন্ন সড়কে হাতি দিয়ে  ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে টাকাতুলা হয়েছে।

এ সময় ব্যবসায়ীরা বলেন, কয়েক দিন পর পরই একটি বড় হাতি নিয়ে দোকানে দোকানে  হানাদিয়ে দোকান প্রতি কমপক্ষে ১০ টাকাকরে আদায় করা হয়।

হাতি নিয়ে দোকানের সামনে এসে তারা দাঁড়ান, টাকা না দেওয়া পর্যন্ত সেখান থেকে হাতি সরানো হচ্ছে না। এভাবে টাকা আদায়ের কারণে বিক্রিতেও সমস্যা হচ্ছে। ব্যবসায়ীরা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, মাঝে মাঝেই বিভিন্ন এলাকা থেকে হাতি নিয়ে এসে চাঁদা আদায় করা হয়।

বড় আকারে হাতি যখন দোকানের সামনে এসে দাড়াঁয় টাকা না দেওয়া পর্যন্ত হাতিটা যেতে চায় না ফলে টাকা দিতে হচ্ছে। গতকাল শনিবার বিকেলে নবীগঞ্জ শহরের হাসপাতাল সড়কে গিয়ে দেখা যায়, বড় হাতির পিঠে বসে একজন(মাহুত) হাতিটিকে পরিচালনা করছে। তাঁর এই কাজে সহযোগিতা করছেন তাঁরই এক অপর সহযোগী।

প্রতিটি দোকান থেকে হাতি দিয়ে টাকা তোলা হয়। টাকা না দেওয়া পর্যন্ত দোকান থেকে হাতি সরানো হয় না বরং শোড় দিয়ে নাড়াচাড়া দেওয়া হয়। ব্যবসায়ীরা জানান কয়েক দিন পর পরই এবাবে হাতি দিয়ে আমাদের দোকানে চাঁদা আদায় করা হয়। সচেতন মহল মনে করেন, বনের পশু পালনের জন্য নির্দিষ্ট আইন আছে। এভাবে বন্য পশু দিয়ে টাকা আদায়কারীদের বিরুদ্ধে তদন্তক্রমে ব্যবস্থা নিতে কতৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করেছেন সচেতন মহল।