গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়ায় হেলিপ্যাড নয় যেন স্টক ইয়ার্ড

এম শিমুল খান, (গোপালগঞ্জ): দূর থেকে দেখলে মনে হয় ছোট ছোট টিলা। আসলে এগুলো টিলা নয়। এগুলো পাথর ও বালুর বড় বড় স্তুপ। বোঝার উপায় নেই এটি হেলিপ্যাড। এ যেন ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের স্টক ইয়ার্ড।

গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া উপজেলার একমাত্র হেলিপ্যাডের এমন অবস্থা। দীর্ঘ দিন ধরে হেলিপ্যাডে এমন অবস্থা বিরাজ করছে। এ নিয়ে এলাকাবাসীর মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

শেখ লুৎফর রহমান আদর্শ সরকারি কলেজ মাঠের উত্তর পার্শে নির্মিত কোটালীপাড়া উপজেলার একমাত্র হেলিপ্যাড। বর্তমান প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা এই হেলিপ্যাডে হেলিকপ্টার নিয়ে একাধিকবার অবতরণ করেছেন।

বর্তমানে এএসকেএল নামে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান তাদের বালু, পাথর স্তুপ করে রেখেছে সেখানে। নির্মাণ কাজের জন্য রাখা এই বালু, পাথর আনা নেওয়ার কারণে হেলিপ্যাড ব্যাপক ভাবে ক্ষতি গ্রস্থ হচ্ছে। নাম প্রকাশ না করা শর্তে হেলিপ্যাডের পাশের এক বাসিন্দা বলেন, ২০১৬ সালে এ ভাবে জনৈক এক ঠিকাদার বালু, পাথর রেখে দেওয়ার কারণে এসএসএফের একটি হেলিকপ্টার এখানে অবতরণ করতে পারেনি।

এটা কোটালীপাড়াবাসীর জন্য অত্যন্ত দু:খজনক। তারা চান প্রশাসন যেন দ্রুততার সঙ্গে হেলিপ্যাডটি দখল মুক্ত করেন। হেলিপ্যাডের পাশের বাসিন্দা অ্যাডভোকেট দেলোয়ার হোসেন সরদার বলেন, যে কোনো সময় কোটালীপাড়ায় প্রধানমন্ত্রীর প্রোগ্রাম হতে পারে। এ ছাড়া দেশের জরুরি প্রয়োজনে হেলিকপ্টার অবতরণ করতে পারে।

তাই সরকারি হেলিপ্যাডে ব্যক্তি স্বার্থে এ ভাবে বালু-পাথর রেখে দেওয়া ঠিক হয়নি। এ ব্যাপারে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের স্বত্বাধিকারী লিয়াকত আলী লেবুর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, হেলিপ্যাডে তারা বালু, পাথর রেখেছেন। প্রশাসন যখন বলবে, তখন সরিয়ে ফেলবেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এস এম মাহফুজুর রহমান বলেন, ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে হেলিপ্যাড থেকে বালু, পাথর সরিয়ে নেওয়ার জন্য বলা হয়েছে। দ্রুত সরিয়ে না নিলে আইনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

This website uses cookies.