নাইজেরিয়ার জার্সির জন্য ৩০ লাখ প্রি-অর্ডার!

প্রথম সকাল ডটকম ডেস্ক: বিশ্বকাপের অন্যতম প্রধান আকর্ষন দেশগুলোর জার্সি। বিশ্বকাপের আগে জার্সি উন্মোচিত করে কাড়ি কাড়ি টাকা কামাতে পটু স্পন্সর প্রতিষ্ঠানগুলো।

আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল কিংবা জার্মানি হট ফেবারিট দলগুলোর জার্সি কিনতে হুমড়ি খেয়ে পড়ে সবাই। কিন্তু এবার যেন হিতে বিপরীত চিত্রই লক্ষ্য করা যাচ্ছে জার্সির বাজারে।

এক নাইজেরিয়ার জার্সির জন্যে ৩০ লক্ষ মানুষ অগ্রিম অর্ডার করেছেন! বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা, আইসল্যান্ড এবং ক্রোয়েশিয়ার গ্রুপে পড়েছেন নাইজেরিয়া।

শক্তিশালী গ্রুপে তাদের মুখোমুখি হওয়ার জন্য হোম এবং এওয়ে দুই রকমের জার্সি বানিয়েছে নাইজেরিয়ার জার্সি স্পন্সর প্রতিষ্ঠান নাইকি। এর ভেতরে এওয়ে জার্সিটির ডিজাইন হয়েছে কিছুটা অন্যরকম। বিশ্বকাপের অন্যান্য জার্সিগুলোর তুলনায় একদম আলাদা।

আর সেই জার্সিটির দিকেই সবার এত নজর। নাইজেরিয়ার ফুটবল ফেডারেশনের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শেহু দিকো ইএসপিএনকে জানিয়েছেন, ‘অন্যান্য জার্সিদের থেকে আলাদা হওয়ায় এটাই সর্বোচ্চ সংখ্যক বিক্রি হয়েছে। এমনকি সারা বিশ্বের ৩০ লক্ষ মানুষ অগ্রিম অর্ডার করে রেখেছে জার্সিটির জন্য। সুপার ঈগলদের ভারপ্রাপ্ত প্রধান আরো বলেন, ‘নাইজেরিয়া তথা বিশ্ব মার্কেটে জার্সিটি মুক্তি পাবে ২৯ মে।

তার পরদিন নাইজেরিয়া ইংল্যান্ডের বিপক্ষে প্রীতি ম্যাচের জন্য দেশ ছাড়বে। প্রত্যেক জার্সির মূল্য ৮৫ ডলার। ‘অগ্রিম অর্ডার ব্যতীত তারা জার্সি বানাতে পারবে না। এখন এতই অর্ডার হয়ে গেছে যে সেগুলো পৌছে দিতে আগামী বছর চলে যাওয়ার কথা।

কিন্তু তারা আশ্বস্ত করেছে খুব দ্রুততার সঙ্গেই এগুলো পৌঁছে দিবেন। নাইজেরিয়ার জার্সি দিয়ে এমন উত্থানে কিছুটা চিন্তায় পড়তেই পারে অন্যন্য দেশগুলো। বিশেষ করে ব্রাজিল কিংবা আর্জেন্টিনা যাদের জার্সি বেশি বিক্রি হয় তারা আরো জোড়েসোড়ে উৎপাদন বাড়াতে মনোযোগী হবে। এটা জার্সি ব্যবসা তথা পুরো বিশ্বের ফুটবল পাগল মানুষদের জন্য ইতিবাচক।

This website uses cookies.