গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সম্পত্তি দখল

এম শিমুল খান, (গোপালগঞ্জ): গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে মুক্তিযোদ্ধার পরিবারের সম্পত্তি জোরপূর্বক দখলের অভিযোগ উঠেছে। দখলকারীরা প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারছেন না বলে অভিযোগ ভূক্তভোগী পরিবারের।

উপজেলার ঘোনাপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটেছে। অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার ঘোনাপাড়া গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা সোহরাফ হোসেন মোল্যা ২০০৯ সালে মারা যান।

পরে তাকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন করা হয়। মৃত্যুকালে তিনি তিন ছেলে-মেয়ে ও স্ত্রী রেখে যান। সংসারের হাল ধরতে ছেলে কর্মসংস্থানের জন্য ঢাকায় চলে যান। মরহুম সোহরাফ হোসেনের স্ত্রী ঝর্ণা বেগম স্বামীর পৈত্রিক ভিটায় একা বসবাস করেন।

এ সুযোগে মুক্তিযোদ্ধা সোহরাফ হোসেনের ওয়ারিশসূত্রে রেখে যাওয়া বাড়ী ও নাল জমিসহ ২৯ শতাংশ সম্পত্তি মরহুম মুক্তিযোদ্ধার ভাই অবসরপ্রাপ্ত বিমান বাহিনীর সদস্য মিজানুর রহমান ও প্রতিবেশী বাচ্চু মোল্যা এবং তার ছেলেরা জোরপূর্বক দখল করেছেন বলে অভিযোগ ভূক্তভোগীদের।

মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের সদস্যরা তাদের জায়গায় দখলে গেলে অবৈধ দখলকারীরা উচ্ছেদসহ প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছে বলে অভিযোগ ভুক্তভোগী পরিবারের। দখলকৃত সম্পত্তি ফিরিয়ে পেতে চেয়ারম্যানসহ স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের দ্বারস্থ হয়েও কোন কাজ হয়নি। একাধিকবার সালিশ বসলেও দখলবাজরা দখল ফেরত দিতে অস্বীকৃতি জানান।

মরহুম মুক্তিযোদ্ধা সোহরাফ হোসেনের স্ত্রী ঝর্ণা বেগম কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, প্রধানমন্ত্রীর উপহার দেয়া ‘বীর নিবাসে’ বসবাস করেও চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছি। এলাকায় কোন বিচার পাচ্ছি না। তাই জীবনের শেষ বয়সে এসে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া বাড়িতে একটু নিরাপত্তায় মাথা গোঁজতে পারি এবং দখলকৃত সম্পত্তি ফিরিয়ে পেতে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

এ ব্যাপারে মিজানুর রহমানের সাথে মোবাইল ফোনে কথা হলে তিনি সব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমরা কারও সম্পত্তি দখল করিনি। আমাদের বিরুদ্ধে সম্পূর্ণ মিথ্যা অভিযোগ করেছে আমার ভাতিজারা। কাশিয়ানী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা এ এস এম মাঈন উদ্দিন বলেন, লিখিত অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *