রাবি শিক্ষক রেজাউল করিম হত্যার সুষ্ঠু বিচারের দাবি

মো: উমর ফারুক, (রাবি): রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় (রাবি) ইংরেজী বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক ড. এএফএম রেজাউল করিম সিদ্দিকী হত্যার দুই বছর হওয়ায় তার স্মরণে শোক র‌্যালি করেছেন বিভাগের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

সোমবার সকাল ১০টার দিকে শহীদুল্লার কলা ভবনের সামনে মুকুর মঞ্চ থেকে শোক র‌্যালি বের হয়ে ক্যাম্পাসের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিন শেষে পূর্বের স্থানে এক সংক্ষিপ্ত সমাবেশে মিলিত হয়।

ইংরেজি বিভাগের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী রাকিব সোহানের সঞ্চালনায় সমাবেশে নিহত রেজাউল করিমের মেয়ে রেজোয়ানা হাসিন শতভী বলেন, আমরা ৮ মে রায়ের অপেক্ষায় আছি।

রায়ের উপর নির্ভর করছে অনেক কিছু। আমরা আশাবাদী হত্যাকারীকে ফাঁসির মাধ্যমে আমার বাবার হত্যার সুষ্ঠু পাব। এসময় তিনি প্রশাসনের কাছে হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী ও বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজী বিভাগের শিক্ষার্থী শরিফুল ইসলামকে অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবি জানন। সমাবেশে ইংরেজি বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক এ.এফ.এম. মাসউদ আখতার বলেন, রেজাউল করিম সিদ্দিকীর মত এক জন শিক্ষকে হত্যা এটা সত্যিই দেশ এবং জাতির জন্য একটি কলঙ্ক।

আর তাই এ ধরণের হত্যাকান্ড বন্ধ করতে সমাজের মানুষগুলোর দৃষ্টিভঙ্গি পাল্টাতে হবে। এ দৃষ্টিভঙ্গি পরিবর্তন করতে সরকারের পাশাপাশি বুদ্ধিজীবীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। এসময় র‌্যালি পরবর্তী সমাবেশে বিভাগের প্রায় শতাধিক শিক্ষক ও শিক্ষার্থী উপস্থিত ছিলেন। সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তারা সমাবেশ থেকে আজ সন্ধ্যায় মুকুল মঞ্চে অধ্যাপক রেজাউল করিমের স্মরণে মোমবাতি প্রজ্জ্বলন ও আগামী ৬ মে  সুষ্ঠু বিচারের দাবিতে পুনরায়  র‌্যালীর ঘোষনা দেন।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ২৩ এপ্রিল রাজশাহীর নগরীর শালবাগান এলাকায় নিজ বাড়ির কাছে অধ্যাপক রেজাউল করিমকে কুপিয়ে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় নিহত শিক্ষকের ছেলে রিয়াসাত ইমতিয়াজ সৌরভ বাদী হয়ে বোয়ালিয়া মডেল থানায় হত্যা অজ্ঞাত আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

মামলাটি তদন্ত করেন নগরীর গোয়েন্দা শাখার পরিদর্শক রেজাউস সাদিক। প্রায় সাড়ে ৬ মাসের তদন্ত শেষে ২০১৬ সালের ৬ নভেম্বর ৮ জনকে আসামী করে প্রতিবেদনটি আদালতে জমা দেন তিনি। শরিফুল ইসলাম ছাড়া কারাগারে রয়েছে বগুড়ার শিবগঞ্জের মাসকাওয়াত হাসান ওরফে আব্দুল্লাহ। আর বাকি তিনজন নীলফামারীর মিয়াপাড়ার রহমতুল্লাহ, রাজশাহী মহানগরীর নারকেলবাড়িয়া এলাকার আবদুস সাত্তার ও তার ছেলে রিপন বর্তমানে জামিনে রয়েছেন বলে জানা যায়।

এরমধ্যে ৪ জনকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয় পুলিশ। বর্তমানে একজন কারাগারে ও তিনজন জামিনে রয়েছেন। এদিকে গত ১১ এপ্রিল অধ্যাপক রেজাউল করিম সিদ্দিকী হত্যাকা-ে দায়ের করা মামলায় উভয়পক্ষের সাক্ষ্যগ্রহণ, শুনানি ও দু’দিনে যুক্তিতর্ক শেষ হয়। যুক্তিতর্ক শেষে রাজশাহীর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক শিরীন কবিতা আখতার এ মামলার রায় ঘোষণা দিন নির্ধারণ করেন আগামী ৮ মে।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *