শাহজাদপুরে চিনা চাষে নতুন সম্ভাবনা : দিগন্ত জুড়ে পাকা চিনার সমারহ

মাসুদ মোশাররফ, (শাহজাদপুর)(সিরাজগঞ্জ): চিনা কি? অপ্রচলিত ফসল চিনা সম্পর্কে বর্তমান প্রজন্মের অনেকেই অবগত নয়। এমন কি যারা কৃষি কাজের সাথে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে যুক্ত তাদের অনেকেও চিনা নামের ফসলটিকে তেমন একটা চিনেন না।

বাংলাদেশের এই অপ্রচলিত ফসলটি অর্থনৈতিক দৃষ্টিকোণ থেকে খুবই সম্ভাবনাময়। স্বল্প পরিশ্রম ও যে কোন ধরণের মাটিতে চিনা চাষ করা যায়। প্রায় বিলুপ্ত হয়ে যাওয়া এই চিনা চাষে নতুন করে আগ্রহ বাড়ছে কৃষকের।

তাই সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে ইরি-বোরো চাষাবাদের পাশাপাশি প্রায় দুই যুগ পর এ অঞ্চলে ব্যক্তিগত উদ্যোগে শুরু হয়েছে চিনা চাষ। বেলে দো-আঁশ মাটির জমি ও পানি জমে না এমন জমিই চিনা চাষের জন্য সবচেয়ে বেশী উপযোগী।

এ কারনে উপজেলার যমুনা, হুরা সাগর, ধলেশ্বরী সহ বিভিন্ন নদীর তীরবর্তী স্থানে এবং জেগে ওঠা চরে ইরি-বোরো চাষে অনুপযোগী হওয়ায় চিনা চাষ শুরু করেছে কৃষকেরা। কৈজুরী ইউনিয়নের চরগুধীবাড়ী গ্রামের কৃষক মোঃ হাফিজুর রহমান পোতাজিয়া ইউনিয়নের ধলাই নদী তীরবর্তী গ্রামের কৃষক মোঃ জমারত বিশ্বাস জানান, চরের শত শত বিঘা জমিতে বালুর পরত জমায় ইরি-বোরো ভাল আবাদ না হওয়ায় পতিত থাকা এই সব জমিতে আমরা ব্যক্তি উদ্যেগে এই চিনা চাষ শুরু করেছি।

চিনার বীজ ছিটিয়ে দুবার সেচ ও একবার ইউরিয়া দিয়ে ভালো ফলন পাওয়া যায়। এছাড়া জমিতে কোনো কীটনাশক প্রয়োগ করতে হয় না এবং স্বল্প খরচ হয় বলেই নতুন করে চিনা চাষ শুরু করেছি।উপজেলার বিভিন্ন অঞ্চল ঘুরে দেখা যায়, চিনার বাম্পার ফলন হওয়ায় কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে। উপজেলার নদী তীরবর্তী বালুচরে এখন পাকা চিনার সমারোহ।

পাকা চিনার সোনালী আভায় ছেয়ে গেছে চরাঞ্চলের দিগন্ত জুড়ে। বেকারি ও পোলট্রি খাদ্য প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠানে এর চাহিদা থাকায় ভালো বাজারমূল্য পাবেন বলে আশা করছেন কৃষকেরা। সেই সাথে প্রতি বছর এর আবাদ সম্প্রসারণ হবে বলেও মনে করছেন তারা। এ বছর বিঘাপ্রতি ১৬-১৭ মণ চিনা পাওয়া যাবে বলে কৃষকের ধারনা।

যা প্রতি মণ চিনা ১ হাজার থেকে ১২ শত টাকা বিক্রি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। কৃষকের আরও জানান, সরকারিভাবে উদ্যোগ নিয়ে নদ-নদী অববাহিকায় পতিত জমিতে চিনা চাষ করা হলে আমাদের কোনো অভাব থাকবেনা। এ ব্যপারে উপজেলা কৃষি অফিসার সৈয়দ মনজুর আলম সরকার বলেন, এ অঞ্চলে কৃষদের ব্যক্তিগত উদ্যোগে চিনা করায় আমরা তাদের সাধুবাদ জানাই। আগামীতে কিভাবে এর ব্যাপকতা বৃদ্ধি করা যায় সে বিষয়ে পদক্ষেপ নেয়া হবে।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *