রাবিতে ধর্মঘটে ছাত্রলীগ-ছাত্রজোট হাতাহাতি

প্রথম সকাল ডটকম (রাবি): ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে নিপীড়ন বিরোধী আন্দোলনে হামলাকারীদের শাস্তির দাবিতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) প্রগতিশীল ছাত্রজোটের ধর্মঘট চলছে।

এর আগে রোববার সন্ধ্যায় তারা ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন করে ধর্মঘটের ডাক দেয়। ক্যাম্পাস সূত্রে জানা যায়, পূর্বঘোষিত ধর্মঘট অনুযায়ী প্রগতিশীল ছাত্রজোটের নেতাকর্মীরা সোমবার সকাল ৮ দিকে ধর্মঘটের সমর্থনে বিক্ষোভ মিছিল বের করে।

পরে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন ভবনের সামনে অবস্থান নেয়। এর পর ৮টা ১০ মিনিটে তারা ক্যাম্পাসের বাস আটকে দেয়। এতে সকালের প্রথম ট্রিপের শিডিউল বাসগুলো ক্যাম্পাস ছেড়ে যেতে পারেনি।

এরপর সাড়ে ৯টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরসহ প্রশাসনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে তাদের কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে তাদের মধ্যে ধাক্কাধাক্কি ও হাতাহাতি হয়। পরে তাদের সরিয়ে দেওয়ার জন্য প্রক্টর পুলিশকে নির্দেশ দেয়। এরপর পুলিশ তাদের চলে যেতে বললে তারা সেখান থেকে চলে আসে।

ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি এ এম শাকিল বলেন, ‘আমরা ধর্মঘট সফল করতে সকালের প্রথম ট্রিপের বাস বন্ধ করে দিই। পরবর্তী শিডিউলের বাস বন্ধ করার জন্য প্রশাসন ভবনের সামনে অবস্থান করছিলাম। এসময় বহিরাগত ছাত্রলীগ ও সরকারদলীয় কর্মকর্তারা আমাদের ধাক্কাধাক্কি করে সরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করে।

এরপর প্রক্টর পুলিশ দিয়ে আমাদের সেখান থেকে সরিয়ে দেয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, ‘সকালে তারা বাস বন্ধ করে দিয়েছিল। আমি তাদের বাস বন্ধ করে সহিংস রাজনীতি বাদ দিয়ে শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি করতে অনুরোধ জানাই। কিন্তু তারা সেটা মানতে রাজি ছিল না। এরপর আমাদের বাস বিকল্প রাস্তা দিয়ে ক্যাম্পাস ছেড়ে যায়।

এরপর তারা সেখান থেকে চলে যায়। মতিহার থানার ওসি মেহেদী হাসান বলেন, সকালে বাস চলাচলে বাধা দেয়াকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা সৃষ্টি হয়। এ সময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। ক্যাম্পাসের পরিবেশ শান্ত রয়েছে বলে জানান তিনি। এদিকে, ঢাকায় আন্দোলনরত দের ওপর হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে ছাত্রজোটের নেতাকর্মীরা।

দুপুর ১২ দিকে কেন্দ্রীয় গ্রন্থগারের সামনে এ সমাবেশের আয়োজন করা হয়। এর আগে দলীয় টেন্ড থেকে তারা বিক্ষোভ মিছিল বের করে। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন, ছাত্রফেডারেশনের সভাপতি তাসবিরুল ইসলাম কিংজল, ছাত্রমৈত্রির সভাপতি ফিদেল মনির, ছাত্র ইউনিয়নের সভাপতি শাকিল হোসেন, ছাত্র ফ্রন্টের রাবি শাখা সাধারণ সম্পাদক তারেক প্রমূখ। বক্তারা সাকলে বাস বন্ধ করে দেয়ায় সময় জোট নেতাদের ওপর হামলা করে রাবি ছাত্রলীগের সাবেক নেতা ফিরোজ, ইলিয়াসসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি জানান।

 

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *