শাহজালালে যাত্রীর অন্তর্বাসে ৪৩ স্বর্ণের বার

প্রথম সকাল ডটকম: হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অভিযান চালিয়ে এক যাত্রীর অন্তর্বাস থেকে বিশেষভাবে লুকানো অবস্থায় ৪৩টি স্বর্ণের বার জব্দ করেছে শুল্ক গোয়েন্দা।

আটক স্বর্ণের ওজন ৪ কেজি ২৮৬ গ্রাম। এসব স্বর্ণের দাম প্রায় ২ কোটি ১৪ লাখ ৩০ হাজার টাকা। আটক যাত্রীর নাম মো. আনোয়ার হোসেন। তার বাড়ি রাজধানীর মোহাম্মদপুরে। পাসপোর্ট নং-বিএল-০১৭৬০৪৭।

সোমবার দিবাগত রাতে সিঙ্গাপুর থেকে ঢাকায় আসা ওই যাত্রীর কাছ থেকে অনেক নাটকীয়তার পর স্বর্ণগুলো উদ্ধার হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে শুল্ক গোয়েন্দার মহাপরিচালক (ডিজি) ড. মইনুল খান জানান, আটক যাত্রী আনোয়ার হোসেন এ বছর জানুয়ারিতে দু’বার ঢাকা-সিঙ্গাপুর যাতায়াত করেছেন।

২০১৭ সালে এই যাত্রী পাঁচবার বিদেশ গেছেন। জিজ্ঞাসাবাদে তিনি নিজেকে একজন লাগেজ ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচয় দেন। আটক স্বর্ণ রেজাউল নামের আরেক ব্যক্তির বলে দাবি করেন। তিনি সিঙ্গাপুরে যাতায়াতের টিকিট ও ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে এই স্বর্ণ বহন করছিলেন বলে দাবি করেন।

আনোয়ার হোসেন সোমবার রাত ৯টায় একটি ফ্লাইটে সিঙ্গাপুর থেকে শাহজালালে আসেন। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শাহজালালে আসার পর ওই যাত্রীকে নজরদারিতে রাখা হয়। পরবর্তীতে গ্রিন চ্যানেল পার হওয়ার পর তাকে থামিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে তিনি তার কাছে স্বর্ণ থাকার বিষয়টি অস্বীকার করেন। তবে সুনির্দিষ্ট গোপন সংবাদ থাকায় এবং যাত্রীর কথাবার্তায় অসঙ্গতি দেখা দেয়ায় তাকে ব্যাগেজ কাউন্টারে নিয়ে যাওয়া হয়।

সেখানে তার শরীর তল্লাশি করে তার অন্তর্বাস থেকে বিশেষভাবে লুকানো অবস্থায় এসব স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। অনেক নাটকীয়তার পর স্বর্ণ উদ্ধার হয় রাত প্রায় ১টায়। শুল্ক গোয়েন্দারা ৪৩টি স্বর্ণের বার উদ্ধার করেন। প্রতিটির ওজন ৯৯.৭০ গ্রাম (৪ কেজি ২৮৬ গ্রাম। আটক যাত্রী মো. আনোয়ার হোসেনকে শুল্ক আইনে গ্রেফতার করা হয়েছে ও তাকে বিমানবন্দর থানায় সোপর্দ করা হবে বলে জানান শুল্ক গোয়েন্দা ডিজি ড. মইনুল।

 

This website uses cookies.