স্বার্থের জন্য মৃত বাবাকে জীবিত করলেন মেয়ে!

প্রথম সকাল ডটকম (মাদারীপুর): মাদারীপুরের কালকিনি উপজেলায় নিজাম হাওলাদার নামের এক মৃত ব্যক্তিকে জীবিত দেখিয়ে মুহরি এসএম সোহেলের মাধ্যমে দলিল নিবন্ধন কার্যক্রম সম্পন্ন করেছেন মৃত ব্যক্তির মেয়ে।

এ ঘটনা ফাঁস হয়ে গেলে এলাকায় ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়। এ বিষয় ভুক্তভোগীর পরিবারের পক্ষ থেকে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানা গেছে।

স্থানীয় ও ভুক্তভোগীর অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, পৌর এলাকার চরবিভাগদী গ্রামের নেরালউদ্দিন হাওলাদারের ছেলে নিজাম হাওলাদার ২০১৭ সালের ১৫ অক্টোবর মারা যান।

কিন্তু মৃত ব্যক্তির মেয়ে হালিমা আফরোজ ২০১৭ সালের ৯ নভেম্বর এক ব্যক্তিকে ভুয়া বাবা সাজিয়ে মুহরি এসএম সোহেলের সহযোগিতায় ও ভারপ্রাপ্ত সাবরেজিস্ট্রার কর্মকর্তা সর্মিলা আহম্মেদ সম্পার যোগসাজশে মৃত ব্যক্তির বাড়ির ১ শতাংশ জমির দলিল নিবন্ধন কার্যক্রম সম্পন্ন করেন। বিষয়টি ফাঁস হলে এলাকায় ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়।

এদিকে, ওই জমি ফেরতের দাবিতে মৃত নিজাম হাওলাদারের বড় ছেলে জাকির হাওলাদার প্রতারণা মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। তবে ঘটনার পর থেকে জমি গৃহীতা মৃতের মেয়ে হালিমা আফরোজ গা ঢাকা দিয়েছেন। মৃতের ছোট ভাই ফারুক হাওলাদার বলেন, আমার ভাই মারা যাওয়ার পর তার মেয়ে হালিমা আফরোজ প্রতারণার আশ্রয় নিয়ে অন্য ব্যক্তিকে ভুয়া বাবা সাজিয়ে প্রথমে ১০ শতাংশ জমি দলিল কার্যক্রম সম্পন্ন করেন।

এ ঘটনা ফাঁস হলে সাবরেজিস্ট্রার অফিসের কর্মকর্তারা নিরাপদে থাকার জন্য ওই দলিলে ১ শতাংশ জমি নিবন্ধন দেখিয়েছেন। এ বিষয়ে অভিযুক্ত মুহরি এসএম সোহেল বলেন, মৃত ব্যক্তির মেয়ে জমি গৃহীতা হালিমা আফরোজ যেভাবে বলেছেন ঠিক সেভাবেই আমি দলিল লিখেছি। আমি তো কাউকে চিনি না।

বিষয়টি জানার জন্য মৃতের মেয়ে জমি গৃহীতা হালিমা আফরোজের সঙ্গে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সাবরেজিস্ট্রার কর্মকর্তা সর্মিলা আহম্মেদ সম্পা বলেন, জমির দলিল হওয়ার পরে বিষয়টি আমি জেনেছি। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ হাফিজুর রহমান বলেন, এ ঘটনার মূল অপরাধী মুহরি সোহেল। তবে আমি এ বিষয়ে উপজেলা ও জেলা সাবরেজিস্ট্রার কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করবো।

 

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *