চিরিরবন্দরে সরকারি খাস জমির উপর খেলার মাঠ দখলের অভিযোগ

মোহাম্মাদ মানিক হোসেন চিরিরবন্দর (দিনাজপুর): দিনাজপুরের চিরিরবন্দরেপুরনো একটি খেলার মাঠ স্থানীয় ভূমিদস্যুরা অবৈধভাবে দখল করেছে বলে এলাকাবাসীক্ষুব্ধ হয়ে ওই দখলকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণেউপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবরঅভিযোগ করেছে।

উপজেলার পুনট্রি ইউনিয়নের খামার কৃষ্ণপুর এলাকায় ভেলামতি নদীর পারে অবস্থিত ২৫০ শতক জমির উপর  মাঠ দখলের কারণে এখানকার শিশু, কিশোর  খেলাধুলা করতে পারছে না।

স্থানীয়রা জানান,পুনট্রি ইউনিয়নের খামার কৃষ্ণপুর মৌজার খতিয়ান নং- ০১, দাগ নং- ৫০২-৫০৩ পরিমান ২৫০ শতাংশ পতিত সম্পত্তি ভেলামতি নদীর উপর উঁচু চরে এই খেলার মাঠ রয়েছে।

এ মাঠটি ভেলামতি নদীর চরে এক যুগের বেশী সময় ধরেএখানকার বসবাসরত চকমুসা, স্বরশ্বতীরপুর, সাহাপুর গ্রামের অধিকাংশ শিশু কিশোরাসহ বড়দের খেলাধুলায় এলাকায় এ মাঠটি ব্যবহৃত হয়ে আসছে। এ খেলার মাঠ ছাড়া ওই এলাকায় বিকল্প খেলার মাঠও নেই। কাগজপত্রে এ মাঠটি এককভাবে কোনো ব্যাক্তি বা গোষ্ঠীর নয়।

এটি ভেলামতি নদীর উঁচু চরেরজমি যা সরকারি খাস জমি ওসর্ব সাধারণের সম্পত্তি। এ মাঠটি জবর-দখলের পর থেকেছেলেরাখেলাধুলা করতে পারছে না। এতে করে তাদের মানসিক বিকাশ বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। ছেলেরা খেলাধুলা ছেড়ে নেশায় আশক্তহচ্ছে । তাই এ  মাঠটি দখলমুক্ত করার জোর দাবি জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

অভিযোগ রয়েছে, আমতলী চকমুসা এলাকার দুলাল হোসেন দুলু, নজরুল ইসলাম,বাবলু হোসেন,সুরুজ্জামান,জয়নাল হোসেন,মোবা উদ্দিন,আবু সালামখেলার মাঠ জবরদখল করে আমের গাছের চারা রোপন ও গমের চাষ করেছে। এলাকাবাসী প্রতিবাদ করতে গেলে ভূমিদস্যুরা হুমকি-ধামকি দেয়। এতে করে কেউ প্রতিবাদ করার সাহস পায় না। এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো: গোলাম রব্বানী বলেন, খোলার মাঠ দখলের বিষয়ে একটি অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *