হজের প্রাক-নিবন্ধন : বেসরকারি কোটা শেষ

প্রথম সকাল ডটকম: আগামী বছর হজে যেতে শুধু সরকারি ব্যবস্থাপনার হজযাত্রীরা প্রাক-নিবন্ধন করতে পারবেন। আগামী ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত এই প্রাক-নিবন্ধন কার্যক্রম চলবে। প্রাক-নিবন্ধনের ক্ষেত্রে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজযাত্রীদের কোটা ইতোমধ্যে পূরণ হয়ে গেছে।

ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা মোহাম্মদ আনোয়ার হোসাইন জাগো নিউজকে এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, ‘কোটা অনুযায়ী এবার বাংলাদেশ থেকে এক লাখ ২৭ হাজার ১৫৮ জন হজে যেতে পারবেন।

এরমধ্যে ১০ হাজার সরকারি ব্যবস্থাপনায় আর বাকি এক লাখ ১৭ হাজার ১৫৮ জন বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে যাবেন। কিন্তু সোমবার পর্যন্ত বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় এক লাখ ৭৮ হাজারের মতো হজযাত্রী প্রাক-নিবন্ধন করেছেন।

এক্ষেত্রে কোটার অতিরিক্ত হজযাত্রীরা ২০১৯ সালের হজের জন্য অপেক্ষমাণ থাকবেন। ‘কিন্তু সরকারি ব্যবস্থাপনার চার হাজারের মতো হজযাত্রী প্রাক-নিবন্ধন করেছেন। আগামী বছর হজের জন্য সরকারি শূন্য কোটার প্রাক-নিবন্ধন চলবে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত।

২০১৮ সালে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় হজে যেতে ইচ্ছুক কারো আর প্রাক-নিবন্ধনের সুযোগ নেই। পবিত্র জিলহজ্ব মাসের চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী বছর আগস্টের ২০ (৯ জিলহজ) তারিখের দিকে পবিত্র হজ অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। সৌদি আরবের সঙ্গে হজ চুক্তি ও মন্ত্রিসভায় হজ প্যাকেজ অনুমোদনের পর প্রাক-নিবন্ধিত হজযাত্রীদের নিবন্ধন শুরু হবে।

হজ চুক্তি ১৪ জানুয়ারি:- আগামী বছর হজ পালনের জন্য সৌদি আরবের সঙ্গে হজ চুক্তি হবে ১৪ জানুয়ারি। এজন্য ধর্মমন্ত্রী মো. মতিউর রহমানের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল সৌদি আরবে যাবেন। সৌদি আরবের হজমন্ত্রীর সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক চুক্তি ছাড়াও অন্যান্যবারের মতো হাজী সেবা সংস্থা মোয়াচ্ছাসা চেয়ারম্যানের সঙ্গে, জেদ্দা-মক্কা-মদীনায় যাওয়া আসা নিয়ে জেনারেল কার সিন্ডিকেট ও ইউনাইটেড এজেন্সির সঙ্গে বাংলাদেশের চুক্তি হবে। বাড়ি ভাড়া নিয়ে মদিনায় আদিল্লা অফিসের সঙ্গেও চুক্তি করা হবে বলে ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে।

হজযাত্রীদেরই ব্যাগ সংগ্রহ করতে হবে:- হজযাত্রীদের দুর্ভোগ লাঘবে আগামী হজের ক্ষেত্রে কিছু ক্ষেত্রে পরিবর্তন আনা হচ্ছে বলে ধর্ম মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন। এবার আর ব্যাগ সরবরাহের জন্য হজযাত্রীদের কাছ থেকে টাকা নেয়া হবে না। সরকারের নমুনা অনুযায়ী হজযাত্রীদের নিজেদেরই ব্যাগ সংগ্রহ করতে হবে।

হজযাত্রীদের ব্যাগ সরবরাহ নিয়ে প্রতি বছরই নানা অনিয়মের অভিযোগ ওঠে হজ এজেন্সিগুলোর বিরুদ্ধে। এজন্য আগামী হজ থেকে এই ব্যবস্থা চালু করা হচ্ছে। এ ছাড়া চলতি মাসের শেষের দিকে হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব), বিমান মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়, গণমাধ্যম প্রতিনিধিসহ সংশ্লিষ্টদের নিয়ে হজ ব্যবস্থাপনাকে আরও উন্নত করতে একটি ওয়ার্কশপের আয়োজন করবে ধর্ম মন্ত্রণালয়। ২০১৮ সালের হজের ক্ষেত্রে ৩৫ শতাংশ হজ ফ্লাইট বাংলাদেশ থেকে সরাসরি মদিনায় পরিচালনা করা হবে বলেও ধর্ম মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *