কারো সাহায্য ছাড়াই পাথরগুলি ছুটছে কেন? জেনে নিন রহস্য!

প্রথম সকাল ডটকম ডেস্ক: শুষ্ক হ্রদ। আশেপাশে কেউ নেই, আছে শুধু কিছু পাথর। কোন মানুষের অস্তিত্ব নেই অথচ পাথরগুলি ছুটছে। কারো সাহায্য ছাড়াই এভাবে পাথর ছুটার ব্যাপারটা কেমন জানি রহস্যজনক।

এমনকি অনেকে শুনে হয়তো ভাবছেন এই আবার কেমন কথা। পাথর আবার নিজে নিজে চলতে পারে নাকি? হ্যাঁ চলতে পারে।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফোর্নিয়া অঙ্গরাজ্যের ডেথ ভ্যালি ন্যাশনাল পার্কের পাহাড়চূড়ায় রেসট্র্যাক প্লায়া নামে এই শুষ্ক হ্রদের কিছু পাথর আছে যেগুলো কারো সাহায্য ছাড়াই এক স্থান থেকে অন্য স্থানে ছুটে চলে।

পাথরগুলোকে কেউ কখনো নড়তে দেখেনি, কিন্তু সেগুলো নড়ে ঠিকই। কারণ সময়ের সাথে সাথে সেগুলোর অবস্থান পরিবর্তিত হয় এবং পেছনে নতুন নতুন দাগ তৈরি হয়। স্বভাবতই মানুষ নিজেদের মতো করে এই রহস্যজনক ঘটনার বিভিন্ন ব্যাখ্যা দেওয়ার চেষ্টা করেছে। কারো ধারণা, কোনো কোনো সময় এখানে বিশেষ ধরনের চৌম্বক ক্ষেত্র তৈরি হয়, যার প্রভাবে পাথরগুলো স্থান পরিবর্তন করে।

কেউ আবার মনে করে, এগুলো এলিয়েনদের কারসাজি। তারাই মহাকাশ থেকে নেমে এসে পাথরগুলো স্থানান্তর করে দিয়ে আবার চলে যায়। আবার অন্যদের ধারণা, এগুলো কিছু দুষ্টু ছেলের দুষ্টামি ছাড়া আর কিছুই না। বিজ্ঞানীরাও অন্তত অর্ধশত বছর ধরে এই ভূতুড়ে রহস্যটি নিয়ে মাথা ঘামিয়েছেন,  কিন্তু কোনো সমাধান দিতে পারেননি।

তাদের অনেকেই অবশ্য ব্যাখ্যা দিয়েছেন যে, এটি হয়তো বাতাস, পানির স্রোত এবং বরফ খণ্ডের ধাক্কার সম্মিলিত প্রভাব হতে পারে। কিন্তু তাদের এই দাবির কোনো বৈজ্ঞানিক প্রমাণ ছিল না। অবশেষে একদল বিজ্ঞানী ঠিক করেন, তারা বৈজ্ঞানিক পদ্ধতিতে তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহের মাধ্যমেই এ রহস্যটির সমাধান করার চেষ্টা করবেন।

অবশেষে তারা প্রমাণ করে যে, কিছু কিছু স্থানের বরফ গলে যখন শূন্যস্থান তৈরি হয়, তখন মৃদু বাতাসের ধাক্কায় আশেপাশের অপেক্ষাকৃত ছোট বরফখণ্ডগুলো চলাচল করার সুযোগ পায়। চলতি পথে সেগুলো পাথরগুলোকে আস্তে আস্তে ধাক্কা দিতে থাকে তাই পাথরগুলি এক স্থান থেকে অারেক স্থানে চলে যায়।

This website uses cookies.