সিলেটের গোলাপগঞ্জে এখনো জমে উঠেনি পশুর হাট

জাহিদ উদ্দিন, গোলাপগঞ্জ (সিলেট): মুসলমানদের ধর্মীয় উৎসব ঈদুল আযহার (কোরবানির ঈদ) আর মাত্র ১দিন বাকি। কিন্তু সিলেটের গোলাপগঞ্জে কোরবানির পশুর হাটগুলো এখনো জমে উঠেনি। আকস্মিক তিন দফা বন্যা ও পাহাড়ি ঢলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির কারণে প্রভাব পড়েছে এবারের ঈদুল আযহায় পশুর হাটগুলোতে।

উপজেলার পৌর সদর ও ১১ টি ইউনিয়নের সবগুলো পশুর হাটেই এখন ক্রেতাদের ভীড় অপেক্ষাকৃত কম। এসব বাজারে দেশি গরুর পাশাপাশি বিদেশি গরুও উঠেছে। ছাগল, ভেড়াসহ ছোট কোরবানির পশুও লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

 উপজেলার গোলাপগঞ্জ বাজার (এমসি একাডেমী মাঠ), ঢাকাদক্ষিণ  মাদ্রাসা বাজার, পুরকায়স্থ বাজার, মীরগঞ্জ মাদ্রাসা বাজার, শরীফগঞ্জ মাদ্রাসা বাজার, রাকুয়ার বাজার সহ ছোট-বড় সবকটি পশুর হাটে খবর নিয়ে জানা যায়, অন্যান্য বছরের তুলনায় এই সময়ে এখনও জমে উঠেনি পশুর হাট।

উপজেলার সর্ববৃহৎ গোলাপগঞ্জ বাজারের ইজারাদার (অংশীদার) হাজী আব্দুল কাদির জানান, এখনও পশুর হাট জমে উঠেনি। তবে সাধারণ হাটে যে পরিমাণ পশু বিক্রি হতো তা অব্যাহত রয়েছে। কোরবানির দিন অরো ঘনিয়ে আসলে পশুর হাট পুরোদমে জমে উঠবে বলে আশাবাদী। ঢাকাদক্ষিণ মাদ্রাসা বাজারের ক্রেতা মখদ্দছ আলী নামের এক ক্রেতা জানান, গরুর চাহিদা এবং বাজেটকে প্রাধান্য দিয়ে গোলাপগঞ্জ বাজারে কোরবানির পশু কিনতে এসেছিলাম।

বাজারে দেশি বিদেশি গরুর অনেক দাম। খালি হাতেই বাড়ি ফিরতে হচ্ছে। গোলাপগঞ্জ বাজারের গরু বিক্রেতা এশাদ আহমদ আহমদ বলেন, অন্যান্য বছরের তুলনায় এই সময় পশুর হাট জমজমাট হয়ে উঠেনি। এদিকে পশুর হাটসমূহে ক্রেতা এবং বিক্রেতাদের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণের ব্যবস্থা নিয়েছে উপজেলা প্রশাসন।

এ ব্যাপারে গোলাপগঞ্জ মডেল থানার ওসি (প্রশাসন) একে এম ফজলুল হক শিবলী এ প্রতিবেদকে জানান, উপজেলার সবকটি পশুর হাটে নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে প্রেরণ করা হয়েছে। সেই সাথে জাল টাকা শনাক্তকারী মেশিন সরবরাহ করা হয়েছে।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *