সিলেটে ভূমিহীন মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য ৬৫টি ‘বীর নিবাস’

প্রথম সকাল ডটকম (সিলেট): সিলেটের বিভিন্ন উপজেলায় আওয়ামী লীগ সরকারের পক্ষ থেকে ভূমিহীন-অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য লাল-সবুজ রঙের ৬৫টি বসতঘর ‘বীর নিবাস’ নির্মাণ করে দেয়া হচ্ছে।

ইতিপূর্বে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর ৪৯টি ঘরের নির্মাণ কাজ শেষ করে মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের কাছে হস্তান্তর করেছে। আরও ১৬টি লাল-সবুজের ‘বীর নিবাসের’ কাজ দ্রুত এগিয়ে চলছে।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় (এলজিইডি) সূত্র জানায়, সাম্প্রতিককালে বর্তমান সরকার স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফরের মাধ্যমে ‘ভূমিহীন ও অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য বাসস্থান নির্মাণ’ প্রকল্পের কাজ শুরু করে।

এরই অংশ হিসেবে সিলেট জেলার বিভিন্ন উপজেলায় ৪৯টি বাসস্থান নির্মাণের কাজ শেষ হয়। এসব ঘরের নাম দেয়া হয় ‘বীর নিবাস’। তালিকাভুক্ত গরিব মুক্তিযোদ্ধা পরিবারের কাছে লাল-সবুজ ঘরগুলো বুঝিয়ে দেয় স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়। অপর ১৬টি বাসস্থান নির্মাণের কাজ চলমান রয়েছে। চলতি বছরের ডিসেম্বরে এই ১৬টি লাল-সবুজের বাসস্থান নির্মাণের কাজও শেষ হবে।

এই ৬৫টি ঘর নির্মাণে ব্যায় হচ্ছে ৫ কোটি টাকা। এলজিইডি সূত্র আরও জানায়, ভূমিহীন ও অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য নির্মিত প্রতিটি বাসস্থানে ২টি শয়ন কক্ষ, ১টি বসার কক্ষ, ১টি রান্না ঘর ও ১টি বারান্দা আছে। যা ৫শ বর্গফুট। এছাড়া বাসস্থানের বাইরের দিকে রান্নাঘর সংলগ্ন ১টি পাকা উঠান, টিউবওয়েল, টয়লেট, লাইভস্টক-শেড এবং একটি পোলট্রিশেড থাকছে।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় (এলজিইডি) সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলী এএসএম মহসিন বলেন, ভূমিহীন ও অসচ্ছল বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি এটি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার। এর মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধে অবদান রাখা বীর সৈনিকদের মধ্যে যারা অবহেলিত ও মানবেতর জীবনযাপন করছিলেন তাদের সামাজিকভাবে পুনর্বাসিত করা হয়েছে।

এতে তাদের আর্থসামাজিক অবস্থার উন্নয়ন ঘটেছে। সিলেট জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডার সুব্রত চক্রবর্তী জুয়েল বলেন, শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন মুক্তিযুদ্ধের চেতনার সরকার ক্ষমতায় আসার পর থেকে ভূমিহীন-অসচ্ছল মুক্তিযোদ্ধাদের জন্য সরকারি জমি বরাদ্দ দিয়ে পাকা বসতঘর তৈরি করে দিচ্ছে। এতে সিলেটের মুক্তিযোদ্ধারা খুবই খুশি।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *