শুরু হয়েছে রাজধানীতে বাস ও ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি

প্রথম সকাল ডটকম: আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে শুরু হয়েছে রাজধানীর লাখো মানুষের বাড়ি ফেরার প্রস্তুতি। বাড়ি ফেরা নিয়ে দুশ্চিন্তা এড়াতে আগেভাগেই অনেকেই সেরে রাখেন বাস, ট্রেন বা লঞ্চের টিকিটের ঝামেলা।

আজ শুক্রবার সকাল থেকে শুরু হয়েছে রাজধানীতে বাস ও ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি। কিন্তু প্রথমদিনেই বাসের কাঙ্ক্ষিত দিনের টিকিট মিলছে না বলে অভিযোগ উঠেছে। তেমনি রেলস্টেশনেও রয়েছে যাত্রীদের দীর্ঘ লাইন।

সকালে রাজধানীর সবচেয়ে বড় বাস টার্মিনাল গাবতলীতে সরেজমিনে দেখা যায়, টিকিট প্রত্যাশীদের ব্যাপক ভিড়। তবে বেশিরভাগরেই টিকিট পেতে দীর্ঘসময় অপেক্ষা করতে হচ্ছে, কিন্তু কাঙ্ক্ষিত দিনের টিকিট পাচ্ছেন না অনেকেই।

গাবতলীতে বিভিন্ন কাউন্টার ঘুরে ও যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেলো, মূলত ৩০ ও ৩১ আগস্ট এই দুইদিনের টিকিটের চাহিদা বেশি। কিন্তু অধিকাংশ যাত্রীই তা পাচ্ছেন না। কারণ হিসেবে কাউন্টার থেকে বলা হচ্ছে, অগ্রিম টিকিট ছাড়ার এক থেকে দেড় ঘণ্টার মধ্যে শেষ হয়ে যায়। তাই নির্দিষ্ট দিনের টিকিট সবাইকে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না।

তবে আজ বাসের টিকিট বিক্রিতে বেশি অর্থ আদায়ের কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। শুক্রবার সকাল ৬টা থেকে শুরু হয়েছে অগ্রিম টিকিট বিক্রি। বাস-মালিকদের আশঙ্কা ছিল কম ছুটি ও বৃষ্টির কারণে এবারে যাত্রী সংখ্যা কম হতে পারে। তবে টিকিট কাউন্টারে যাত্রীদের ভিড় বলছে উল্টো কথা। রাজধানীর গাবতলী বাস টার্মিনাল ছাড়াও কল্যাণপুর, টেকনিক্যাল, শ্যামলী, কলেজ গেটসহ বিভিন্ন স্থানের কাউন্টারে টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে।

এসব এলাকায় হানিফ এন্টারপ্রাইজ ছাড়াও সোহাগ পরিবহন, শ্যামলী পরিবহন, নাবিল পরিবহন, এসআর ট্রাভেলস কাউন্টারের সামনে ছিল যাত্রীদের ব্যাপক ভিড়। সংশ্লিষ্টরাও জানালেন, এবার সবচেয়ে বেশি চাপ থাকবে ৩০ ও ৩১ আগস্ট। এই দুই দিন সবচেয়ে বেশি মানুষ ঢাকা ছাড়বেন। আবার কেউ কেউ ৩১ আগস্ট অফিস করেই ঢাকা ছাড়বেন।

হানিফ এন্টারপ্রাইজের মহাব্যবস্থাপক আবদুস সামাদ বলেন, ‘এবার আমরা ২ সেপ্টেম্বরকে ঈদ ধরে অগ্রিম টিকেট বিক্রি করেছি। সে ক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি চাপ রয়েছে ৩০ ও ৩১ আগস্ট। এই দুই দিনে সবচেয়ে বেশি মানুষ ঢাকা ছাড়বেন বলে মনে করা হচ্ছে। ঈদের আগে শেষ কর্মদিবস হচ্ছে ৩১ আগস্ট। কেউ কেউ এই দিন ছুটি নিয়ে এক দিন আগেই অর্থাৎ ৩০ আগস্ট ঢাকা ছেড়ে যাবেন।

কেউ কেউ ৩১ আগস্ট অফিস করেই ঢাকা ছাড়বেন। তাই এই দুই দিন সবচেয়ে বেশি চাপ থাকবে। চাহিদা মতো টিকিট দেওয়া হচ্ছে দাবি করে তিনি বলেন, দাম বেশি রাখা হচ্ছে না। এদিকে, সকাল ৮টা থেকে কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশনের ২৩টি কাউন্টার থেকে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। আজ বিক্রি হচ্ছে ২৭ আগস্টের টিকিট। একজন সর্বোচ্চ ৪টি টিকিট কিনতে পারবেন।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *