কেটে ফেলা হয়েছে শাহীনের এক হাত

প্রথম সকাল ডটকম ডেস্ক: সিলেট নগরীর সোবহানীঘাট এলাকায় সোমবার দুপুরে সন্ত্রাসীদের হামলায় গুরুতর আহত ছাত্রলীগ কর্মী শাহীন আহমদ ঢাকার পঙ্গু হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। পঙ্গু হাসপাতাল ও ঢাকা হৃদরোগ ইন্সটিটিউটের অধীনে শাহীনের চিকিৎসা চলছে বলে জানা গেছে।

সেখানে শাহীন ডা. এনায়েতুল্লাহ, ডা. মাহবুব ও ডা. মামুনের অধীনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। সোমবার রাতে ঢাকায় নেওয়ার পর শাহীনের একটি অস্ত্রোপচার করা হয়েছে। এতে গুরুতরভাবে আঘাতপ্রাপ্ত শাহীনের ডান হাতের কব্জি থেকে নিচের অংশ কেটে ফেলতে হয়েছে।

ধারালো অস্ত্রের আঘাতে তার ডান হাত শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে সেটি জোড়া লাগানোর চেষ্টা করা হলেও তা সম্ভব হয়নি। এদিকে অস্ত্রোপচারের পরেও শাহীন পুরোপুরি বিপদমুক্ত নয়। এখনও তার অবস্থা আশংকাজনক।

ধারালো অস্ত্রের কোপে গুরুতর জখম হওয়া শাহীনের বাম হাত ও এক পায়ের আঘাতপ্রাপ্ত স্থান জোড়া লাগানোর চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। এসব তথ্য জানিয়েছেন ঢাকায় শাহীনের সাথে অবস্থান করা তার স্বজন ডেভিড দেলওয়ার। তিনি আরো জানান- শাহীন ঢাকা পঙ্গু হাসপাতাল এবং হৃদরোগ ইন্সটিটিউটে ডা. এনায়েতুল্লাহ, ডা. মাহবুব ও ডা. মামুনের অধীনে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এখনও তার শারীরিক অবস্থার কোন উন্নতি হয়নি বলে জানিয়েছেন ডাক্তাররা। শাহিনের চিকিৎসার ব্যপারে চিকিৎসকরা সর্বদা তৎপর রয়েছেন বলেও জানান তিনি। এদিকে শাহীনের সুস্থতা কামনায় সকলের দোয়া কামনা করেছেন তার পরিবারের সদস্যরা।

প্রসঙ্গত, সোমবার বেলা ১টার দিকে নগরীর সোবহানীঘাটে জালালাবাদ কলেজের সামনে মদন মোহন কলেজ ছাত্রলীগের কর্মী ও সিলেট সদর উপজেলার পীরপুর টুকেরবাজারের নূরুল আমিনের ছেলে শাহীন আহমদ (২২)।

জালালাবাদ কলেজের ছাত্র উপশহরের জালাল উদ্দিনের ছেলে ছাত্রলীগকর্মী আবুল কালাম আসিফকে (১৮) ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর আহত করা হয়। গুরুতর আহত শাহীনকে সোমবার বিকেলেই ঢাকায় প্রেরণ করা হয়। শিবির ক্যাডাররা এ হামলা চালিয়েছে বলে দাবি ছাত্রলীগের। তবে, শিবিরের পক্ষ থেকে বিষয়টি নাকচ করে দেয়া হয়েছে।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *