জৈন্তাপুরের কলসী নদী থেকে হাত-পা বাঁধা লাশ উদ্ধার

01

শোয়েব উদ্দিন, জৈন্তাপুর, (সিলেট): সিলেটের জৈন্তাপুর উপজেলার কেন্দ্রি সীমান্তবর্তী কলসী নদী হতে ১ কন্যা সন্তানের জনকের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায় গত ৫ আগষ্ট শনিবার জৈন্তাপুর উপজেলার বিরাইমারা (গড়েরপার) গ্রামের আব্দুল কুদ্দুস মিয়ার ছেলে ১সন্তানের জনক জামাল হোসেন(২৮) নিখোঁজ হন। এনিয়ে জৈন্তাপুর থানায় পরিবারের পক্ষ হতে একটি সাধারণ ডায়েরী করা হয়েছে।

কিন্ত নিখোঁজের ৩দিনের মাথায় ৮আগষ্ট মঙ্গলবার সকাল ১১টায় কেন্দ্রি গ্রামের ফখর উদ্দিনের বাড়ীর সন্নিকটে বয়ে যাওয়া কলসী নদীতে হাত-পা বাঁধা অবস্থায় একটি লাশ ভাঁসতে দেখে স্থানীয় লোকজন। সঙ্গে সঙ্গে ইউপি চেয়ারম্যান এখলাছুর রহমানকে বিষয়টি জানান। চেয়ারম্যান সংবাদটি জৈন্তাপুর মডেল থানা পুলিশকে খবর দেন।

খবর পেয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ খান মোঃ ময়নুল জাকির, অফিসার ইনচার্জ (তদন্ত) জাহিদ আনোয়ার সঙ্গীয় ফৌস নিয়ে কলসী নদী হতে নিহতের লাশ উদ্ধার বিকাল সাড়ে ৪টায় জৈন্তাপুর মডেল থানায় নিয়ে আসে।

এবিষয় জৈন্তাপুর ইউপি চেয়ারম্যান এখলাছুর রহমান বলেন- জামাল গত শুক্রবার হতে নিখোঁজ রয়েছে। সকাল ১১টায় স্থানীয় লোকজন কলসী নদীতে জামালের লাশ ভেসে থাকতে দেখে। তিনি আরও বলেন এটি একটি পরিকল্পিত হত্যা এবং লাশ গুম করতে হাত-পা সঙ্গে পাথর ও ইট বেঁধে রাখে।

আমি আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে ঘটনার রহস্য উদঘাটনের দাবী জানাচ্ছি। এবিষয়ে জৈন্তাপুর মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ খান মোঃ ময়নুল জাকির লাশ উদ্ধারের সত্যতা স্বীকার করে বলেন প্রাথমিক ভাবে ধারনা করা হচ্ছে এটি একটি পরিকল্পিত হত্যা।

লাশ উদ্ধার করে অধিকত্বর তদন্তের জন্য সিলেটে এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করব এবং তদন্ত স্বাপেকে ঘটনায় সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *