গোপালগঞ্জের ঈদ বাজারে এবার অগ্নি-২ ও মোদি কোটের চাহিদা বেশি

এম শিমুল খান, (গোপালগঞ্জ): গোপালগঞ্জের ঈদ বাজারে এবার মেয়েদের কাছে অগ্নি-২ ও শিশুদের কাছে মোদি কোটের চাহিদা বেশি। এবার যেন ভারতীয় এবং চাইনিজ পোশাকই দখল করে নিয়েছে এখানকার বাজার।

তবে সুতি কাপড়ের কদরও কমেনি। এবারের ঈদে পোশাকের দাম গত বছর থেকে বেশি এমনই অভিযোগ ক্রেতাদের। অন্যদিকে ব্যবসায়ীরা বলছেন, অত্যাধুনিক ডিজাইনের পোশাক আনায় দামটাও একটু বেশি।

জেলা শহরের বিভিন্ন মার্কেট ঘুরে দেখা গেছে, প্রতিটি দোকানে পুরুষের চেয়ে নারী ক্রেতার সংখ্যাই বেশি। শুধু বড়রাই নয় পছন্দ মত পোশাক কিনতে শিশুদের নিয়েও দোকানে ভিড় করছেন মা-বাবা। এবারের ঈদে নতুনত্বের ছোঁয়া এসেছে বাজারে।

দোকানগুলোতে রাখা হয়েছে নতুন নতুন ডিজাইনের নানা রঙের পোশাক। তবে দামে সাশ্রয়ী আর আরামদায়ক হওয়ায় ক্রেতার প্রথম পছন্দই দেশি সুতির পোশাক। বাড়তি দামের কারণে ছেলে-মেয়েদের চাহিদা পূরণ করতে মধ্যবিত্ত ও নি¤œবিত্ত পরিবার গুলোকে হিমশিম খেতে হচ্ছে। বিক্রেতারা জানিয়েছেন, এবারের ঈদে বাজারে নরমাল, নবাব, প্রিন্ট, বুটিক ও হাতে কাজ করা সহ বাহারি ডিজাইনের নানা বৈচিত্রের পাঞ্জাবি বেশি বিক্রি হচ্ছে।

পাঞ্জাবির পাশাপাশি তরুণদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছে ফিটিং হাফ শার্ট, ফুল শার্ট, শর্ট পাঞ্জাবি, জিন্স প্যান্ট, চায়না গ্যাবাডিন, ফরমাল প্যান্ট, টি-শার্ট, ফরমাল শার্ট, শেরোয়ানি। অন্যদিকে, মেয়েদের জন্য নামি-দামি ঈদের পোশাকের ছড়াছড়ি রয়েছে বড় বড় বিপণী বিতান গুলোতে। এবারে ভারতীয় পোশাক অগ্নি-২ নারী ক্রেতাদের দৃষ্টি কেড়েছে।

লং গাউনের মতো লং ফ্রগ ড্রেসও বেশ আকর্ষণ করছে তাদের। তবে এবারও মেয়েদের পছন্দের শীর্ষে রয়েছে লেহেঙ্গা। আর সেই সাথে চাহিদা রয়েছে জামদানি, টাঙ্গাইল ও সুতি জামদানি শাড়ির। বাচ্চাদের মধ্যে জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছে মোদি কোট। নতুন পোশাক কিনতে আসা সদ্য বিবাহিত দম্পতি আরমান খান ও মেহজাবিন মিম জানান, গত বছরের তুলনায় এ বছর পোশাকের দাম বেশি।

This website uses cookies.