ঝিনাইদহে ফেসবুকের বিকল্প ম্যাসেঞ্জার তৈরী করে তোলপাড় : হ্যাকারদের হত্যার হুমকি

জাহিদুর রহমান তারিক, (ঝিনাইদহ): ঝিনাইদহে ফেসবুকের ন্যায় সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম পোষ্ট টাচ তৈরী করেছে আবরার নুর অর্ণব নামের ৭ম শ্রেণীর এক ছাত্র।

ওয়েবসাইটটি তৈরী করার পর কয়েক বার হ্যাক করার পর পুরোটা নিজেদের নিয়ন্ত্রনে না আনতে পারায় মোবাইলে মুহুর্তে মুহুর্তে ক্ষুদে বার্তা দিয়ে হত্যার হুমকি দিচ্ছে হ্যাকাররা। জীবনের নিরাপত্তায় প্রায় ১ সপ্তাহ বাড়ী থেকে বের হতে পারছে না স্কুল ছাত্র অর্ণব ও তার পরিবার।

জানা গেছে, ঝিনাইদহ সরকারী বালক উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণীর ছাত্র অর্ণব। পিতা ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন কর্মকর্তা। থাকেন ঝিনাইদহ শহরের ব্যাপারীপাড়ার একটি ভাড়া বাড়ীতে। ৫ম শ্রেনীতে পড়ার সময় থেকে কম্পিউটার নিয়ে নাড়াচারা শুরু করে।

ইতিমধ্যে কম্পিউটার ও ওয়েব সাইট নির্মাণ নিয়ে অনেক কিছু শিখেছে সে। ১৬ ডিসেম্বর থেকে সে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নতুন ওয়েবসাইট তৈরীর কাজে হাত দেয়। ১৮ এপ্রিল সে সফল হয়। নাম দেয় পোষ্ট টাচ।

নিজস্ব ডোমেইন কিনে লঞ্চ করেন সাইটটি। ৬৪ জন তার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একাউন্ট খোলে। তৈরী করে পোষ্ট টাচ নামের অ্যাপস। তার এই সাফল্য চোখে পড়ে হ্যাকারদের। গত ২২ মে প্রথম তার ওয়েব সাইট পোষ্ট টাচ হ্যাক করা হয়। অনেক চেষ্টার পর তা উদ্ধার করা হয়। আবারো হ্যাক করা হয়।

সর্বশেষ হ্যাকাররা এসকিউএল ইনজেকশান পুশ করে সব কিছু নষ্ট করে দেয়। এতেও দমেনি অর্নব। নতুন করে আবারো শুরু করে ওয়েবসাইটির কাজ। তবে বসে নেই হ্যাকাররা। অর্ণবের পিতা আব্দুল আলিমের মোবাইল ফোনে মুহুর্তে মুহুর্তে ক্ষুদে বার্তা দিয়ে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছে হ্যাকারা। বিষয়টি জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপারকে জানানো হলে বাড়ীতে পুলিশের ব্যবস্থা করা হয়েছে তবুও আতংকিত পরিবার।

বাড়ী থেকে বের হতে পারছেন না পরিবারের লোকজন। বন্ধ রয়েছে তার লেখাপড়া। অর্ণবের বাড়ীতে কে বা কারা কখন আসছেন বা কখন যাচ্ছেন তা মোবাইলে ক্ষুদে বার্তা দিয়ে জানাচ্ছেন হ্যাকাররা। আর নিয়মিত চলছে হত্যার হুমকি। এমনকি সংবাদকর্মীদের যাওয়া ও আসার বিষয়েও ম্যাসেজ দিতে দেখা গেছে।

অর্ণবের বাবা আব্দুল আলিম জানান, এই ঘটনার পর থেকে আমার পরিবার নিয়ে চরম আতংকের মধ্যে রয়েছি। দ্রত হত্যার হুমকিকারী ও হ্যাকারদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি মুলক ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী করেছেন আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর কাছে। এ ব্যাপারে সদর থানার ওসি এমদাদুল হক শেখ বলেন, অর্ণবের পিতা একটি সাধারণ ডায়েরী করেছেন।

বিষয়টি নিয়ে তদন্ত চলছে, তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসক জাকির হোসেন জানান, বিষয়টি জানার পর থেকে তিনি অর্ণবের ও তার পরিবারে সার্বিক নিরাপত্তার ব্যবস্থা গ্রহন করেছেন। এছাড়াও ব্যক্তিগত ভাবে তিনি সবসময় খোঁজ খবর রাখছেন।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *