চোখের পানি

কবি ডাঃ এম.ফেরদ্দৌসী ইয়াসমিন চৌধুরী

ফজলে বাবার বাড়ি ছিল

ভালোবাসায় ঘেরা,

সেই খানে আনন্দ উল্লাসে ছিল ভরা ।

ফজলে বাবার একটি মেয়ে

প্রানের প্রিয় জান,

নাম রেখেছেন ফেরদ্দৌসী বেহেস্তের বাগান।

বাদাম ভালো বাসে মেয়ে

বাবাক বলে তাই,

বাবা বলে আছি বেটি কোন দুঃখ নাই।

তাইতো বাদাম গাড়লো বাবা

বাদাম হলো তায় ,

বাবা মেয়ের খুশি দেখে পরাণ জুড়ে যায়।

নতুন ঘর তুলতে গাছটি

উপুড়ে ফেলে তায় ,

গাছের কথা ভেবে মেয়ে কেঁদে বুক ভাসায়।

বাবা বলে ওরে বেটি

কাঁদিস কেন বল,

তোর বুকে আঘাত পেলে আমার চোখে নামে জল।

আদরের মেয়ের কান্না বাবা

সইতে পারে নি,

তাইতো গাছটির নাম রেখেছে চোখের পানি।

বাবা বলে ওরে বেটি

আল্লাহ তোর সহায়,

যাহা চাইবি তাহাই পাইবি দিবে পরম দয়াময়।

হঠাৎ বাবা হারিয়ে

গেল চোখের নিমিশে ,

খোদা তুমি নিয়ে যাও আমায় আমার বাবার পাশে।

গাছকে বলি চোখের পানি

তুমি  কথা কও ,

কোথায় গেছে বাবা আমার তুমি এনে দাও।

গাছ বলে হতভাগি

মিথ্যে আশা ছাড়ো ,

একালে না হয় পরকালের

ধৈরয্য তুমি ধর,

এখন দেখি চোখের পানি

ফল শুধু দেয় ,

চোখের পানি বাবার জন্যে করে হায় হায়।

This website uses cookies.