মার কাছে খোলা চিঠি

45

 

 

 

 

 

সানি সূত্রধর

কতটা বয়স পার করেছি জানিনা !

হবে হয়তো, সাইত্রিশ আটত্রিশ।

সত্যি করে বলোতো মা আমার বয়স কত ?

তুমি কি নিশ্চুপ থাকবে, ঐ তুলশি গাছটির মতো ?

যার স্পর্সে তুমি ঘুমিয়ে রয়েছ তেত্রিশটি বছর

লতায় মোড়ানো গাছটিও আজ সুশোভিত ফুলে ফলে

অথচ, আজ তোর প্রিয় সন্তানেরা ঘড় ছাড়া

কে কোথায় থাকে তার খবরও তুই রাখিসনা।

মা, ও মা তুমি এত নিষ্ঠুর কেন ?

ছায়াঘেড়া তুলশি মঞ্চে বসে কত কেঁদেছি !

তবুও তুমি দেখা দাওনি বলোনি এসে

কাঁদিশনা বাছা, আমি আবার আসব পৌষের শেষে।

মা, তুমি একবার এসো, পুকুরপাড়ের ঐ পথটি ধরে

দেখে যাও তোমার ছোট্ট সোনারা আজ কত বড় হয়েছে

ওরা আজ ছেলে পুলে নিয়ে সংসার পেতেছে

বেঁচে তবু আছে, মা হরা বিরহের শত ব্যথা বুকে নিয়ে।

মা, ও মা, তুমি কেমন আছ ?

মা ! তোমার দেশে কি আজ বসন্ত না বরষা ?

হে রাধা-মাধব যদি আসে কখনো

আমার মরন তবুও ছাড়িবো না তুমার চরন।

তোমাার শিখানো এই বাক্যটুকুই আমার ভরসা ।

মা, মর্তের খবর পাও কি তুমি স্বর্গে বসে ?

আমরা আছি অকেক সূখে, থাকিস মা তুই হাসি মূখে

স্বর্গে বসে করিস আসির্বাদ,

তোর সন্তানেরা যেন থাকে দুধে ভাতে।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *