সাজার অগ্রভাগে থাকা লাভের নাম নাই অনলাইন নিউজ পোর্টাল

U00

আজাদ জয়: বর্তমানে বাংলাদেশ থেকে প্রকাশিত অনলাইন নিউজ পোর্টাল গুলোর হাল চাল তাদের আয় রোজগার এবং শাস্তি ব্যাবস্থা। অনলাইন নিউজ পোর্টাল গুলোকে তো প্রিন্টের পেছনে কোন খরচ করতে হয় না। মিডিয়া জগৎসহ দেশের অনেকের একটা ধারনা হয়েছে অনলাইন নিউজ পোর্টাল গুলো লক্ষ লক্ষ টাকা আয় করে কিন্তু কি ভাবে করে তারা তা প্রকাশ করে না।

না হলে এগুলো চলে কি করে? খরচ কথা থেকে আসে? এসবের প্রয়োজন কি? গত কয়েক বছর ধরে আমরা বেশ কিছু উদ্দোগি মানুষ মিলে নিজ নিজ মত করে কাজ করে যাচ্ছি বাংলাদেশে অনলাইন নিউজ পোর্টাল গুলো নিয়ে।

অনলাইন নিউজ পোর্টাল গুলোর তাতক্ষনিক সংবাদ পরিবেশনের কারনে প্রিন্ট মিডিয়ার থেকে অনেক গুন বেশি জনপ্রিয়তা লাভ করেছে। অনলাইন নিউজ পোর্টাল গুলো বিভিন্ন ভাগে বিভক্ত হয়ে গেছে। জাতীয়, আঞ্চলিক, ক্রাইম, খেলাধুলা, বিনদন স্বাস্থসহ আরও অনেক ধরনের ক্যাটাগরিতে এই নিউজ পোর্টাল প্রতিদিন প্রকাশিত হয়ে আসছে।

মূলতো তথ্য পরিবেশন করাই হচ্ছে পোর্টাল গুলোর মূল উদ্দেশ্য। বর্তমানে ভাল খারাপ জঘন্য তিন পদের নিউজ পোর্টাল বেরিয়েছে আমাদের দেশে। অন্ধকার না থাকলে যেমন আলোর মূল্য বুঝার উপায় নেই তেমনি খারাপ না থাকলে ভালোর মূল্য নেই। আমাদের দেশে অনলাইন নিউজ পোর্টালের সিংহ ভাগ পাঠক হচ্ছে নতুন প্রজন্মের ছেলে মেয়েরা যারা সোশ্যালমিডিয়ায় বিচরন করেন। কিন্তু কিছু পোর্টাল নিজেদের রেংকিং বাড়ানোর লক্ষে নিউজ তথ্য চুরিসহ এমন কিছু তথ্য সরবরাহ করেন যা রিতিমত লজ্জাজনক পরিস্থিতি সৃষ্টি করে।

তাছাড়া যৌন সুড়সুড়ি বিষয়ক ও ভুয়া খবর গুলো সোশ্যালমিডিয়া মাধ্যমে ব্যাপক প্রচার পায়। মাঝে মধ্যে এসমস্ত পোর্টাল দেশের রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, দেশি বিদেশি অভিনেতা অভিনেত্রি, খেলোয়াড়দের এমন কিছু তথ্য নির্দিধায় প্রকাশ করেন যার সাথে সত্যতার কোন মিল থাকে না। আর এসব তারা করছে শুধু নিজ পোর্টালের রেংকিং বাড়ানোর আশায়।

রেংকিং লোভি এসকল নিউজ পোর্টালের ষড়যন্ত্র মুলক ভুয়া খবর বা তথ্য নিয়ত্রনে চেষ্টায় বার বার ব্যার্থ হয়ে বাংলাদেশ সরকার অনেক পর্যবেক্ষনের পর তথ্যপ্রযুক্তি আইনে বেশ কিছু নতুন ধারা সংযুক্ত করেছেন। একজন হত্যার আসামি উচ্চ আদালতে জামিন লাভ করতে পারে কিন্তু একজন অনলাইন পত্রিকার সম্পাদক বা প্রকাশক তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষ আদালত ছাড়া জামিল লাভ করতে পারে না।

তাছাড়া তথ্যপ্রযুক্তি আইনে যে সাজা গুলো রাখা হয়েছে তা বাংলাদেশের সর্বচ্চ সাজা হিসেবে ধরা যায়। তাই এটা নির্দিধায় বলা যায় অনলাইন নিউজ পোর্টাল গুলো আজ মিডিয়া জগতে সাজার অগ্র ভাগে দাড়িয়ে আছে। প্রতিদিন নতুন নতুন নিউজ ওয়ব সাইট বা পোর্টাল চালু হচ্ছে।

আর এসব নিউজ পোর্টাল গুলোর পরিচালকদের সাথে কথা বলে এটা অবলিলায় বলা যায় যে, মানুষের ধারনা রেংকিং ভাল হলে পোর্টাল গুলো থেকে অনেক অর্থ আয় হয়! রেংকিং দেখার অনেক ওয়েবাইট থাকলেও আমাদের দেশে জনপ্রিয় হচ্ছে এলেক্সা বা গুগুল। কিন্তু কেউ এটা চিন্তা করে না বাংলাদেশের একটা পোর্টালে ভাল রেংকিং দিয়ে বিদেশে অবস্থিত এলেক্সা বা গুগুলের কি লাভ?

এদেশের একটা পত্রিকায় প্রতিদিনে তিন জন বা তিন লক্ষ পাঠক প্রবেশ করে তাতে রেংকিং প্রদান কারি সংস্থা গুলোর কি কোন লাভ আছে? অনেকের ধারনা যেহেতু এসব পত্রিকা পড়তে মোবাইল ফোন এবং ইন্টারনেট ব্যবহার হয় সেক্ষেত্রে মোবাইল অপারেটর ও ইন্টার্নেট সার্ভিস প্রভাইডার গুলোর কাছ থেকে পোর্টাল গুলো অনেক টাকা আয় করে! এছাড়া আন্তর্জাতিক ও মাল্টিন্যাশনাল কম্পানির বিজ্ঞাপণ তো থাকছেই।

আমরা এখনও বোকার স্বর্গে বাস করছি। প্রিন্ট মিডিয়া যতই ছোট হক তারা সরকারি বেসরকারি নানান বিজ্ঞাপন পায় কিন্তু অনলাইন নিউজ পোর্টালের ক্ষেত্রে সরকারি কোন নিতিমালা না থাকায় এ সব সুবিধা থেকে এখনও বঞ্চিত আছে দেশের অনলাইন নিউজ পোর্টাল গুলো। রাজধানী ঢাকা থেকে প্রকাশিত হাতেগনা কিছু অনলাইন নিউজ পোর্টাল আছে যারা নিয়মিত বিজ্ঞাপন পায় এগুলোর মধ্যে বেশ কিছু নিউজ পোর্টাল দেশের মাল্টিন্যাশনাল কম্পানির অধীনে পরিচালিত হয়।

যেহেতু আমাদের দেশে গুগুল এখনও কোন স্থায়ী অফিস স্থাপন করেনি তাই গুগুলএড সবার জন্য পাওয়া সম্ভব হয় না। অনেকেই ধার করে বিদেশি বন্ধুবাদ্ধবদের মাধ্যমে গুগুলেরএড পেলেও সে গুলো তেমন একটা লাভজনক হয় না কারন ইন্টার্নেটের উচ্চমূল্য। গুগুল বা এধরনের বিজ্ঞাপন দাতা সংস্থা গুলোর নিয়োম হচ্ছে শুধু বিজ্ঞাপন দেখলে হবে না তাতে ক্লিক করতে হবে তাহলেই সেটা থেকে আয় আসবে কিন্তু কজন আর ক্লিক করে।

অনলাইন নিউজ পোর্টাল পরিচালন করা অতন্ত ধর্য আর ব্যায় সাপেক্ষ কাজ। স্থানিয় যে সমস্ত বিজ্ঞাপন আসে তা স্থানিয় প্রিন্ট মিডিয়ার মূল্য মানের হওয়ায় অনেক পোর্টাল সে সব বিজ্ঞাপন সহজে ধরে না। তাই এটাও নির্দিধায় বলা যায় অনলাইন নিউজ পোর্টালে এখন পর্যন্ত কোন লাভ নাই। তবে এটা আশা করা যায় বাংলাদেশ সরকারের তথ্য মন্ত্রনালয়ের অধিনে অনলাইন নিউজ পোর্টাল গুলো নিবন্ধনের যে উদ্দ্যোগ গ্রহন করা হয়েছে তা কার্যকর হলে হয়তো কোন এক সময় এই পোর্টাল গুলো লাভের মুখ দেখতে পাবে। ততদিন পর্যন্ত আমাদের অপেক্ষা করতে হবে। লেখক: সম্পাদক দিনাজপুর নিউজ.কম

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *