ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোভিসির পিএইচডি জালিয়াতি তদন্তের দাবি

02

সাইফুল্লাহ হিমেল, ইবি (কুষ্টিয়া): ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রোভিসি প্রফেসর ড. শাহিনুর রহমানের পিএইচডি ডিগ্রি ভূয়া দাবি করে তা তদন্ত করে দেখার দাবি জানিয়েছে বঙ্গবন্ধু পরিষদ এবং আওয়ামীপন্থী শিক্ষক সংগঠন শাপলা ফোরামের একাংশের নেতারা।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় ইবি প্রেস কর্ণারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে ইংরেজি বিভাগের শিক্ষক ড. শাহিনের পিএইচডি জালিয়াতির তদন্তে কর্তৃপক্ষের উদাসিনতার প্রতিবাদ এবং কার্যকর নিরপেক্ষ তদন্তের দাবি জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বঙ্গবন্ধু পরিষদের একাংশের সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. মিজানুর রহমান এবং শাপলা ফোরামের একাংশের সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. আনোয়ার হোসেন সাক্ষরিত একটি লিখিত বক্তব্য সংাবাদিকদের পড়ে শোনান প্রফেসর ড. মিজানুর রহমান।

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়েছে, “ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মো: শাহিনুর রহমানের বিভিন্ন দুর্নীতি ও অনিয়ম নিয়ে আমরা চলতি বছরের ২৩ এপ্রিল একটি সংবাদ সম্মেলন করে চিঠির মাধ্যমে তার দুর্নীতির বিষয় টি মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রীসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে অবহিত করি।

পরে গত ১৬ মে ড. শাহিনের পিএইচডি জালিয়াতি সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রমাণ্য তথ্য-উপাত্ত উপস্থাপন করে আরো একটি সংবাদ সম্মেলন করি এবং পিএইচডি জালিয়াতির বিষয় টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করে তার পিএইচডি জলিয়াতিসহ সকল দুর্নীতি এবং অনিয়মের তদন্ত করার জন্য জোর দাবি জানাই। কিন্তু দুঃখের বিষয়, তার পিএইচডি জালিয়াতির স্পষ্ট প্রমাণ এবং তার সকল দুর্নীতি অনিয়মের তথ্য-প্রমাণ যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে উপস্থাপন সত্ত্বেও তার জালিয়াতি তদন্তে কোন ব্যবস্থা এবং তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়নি।

লিখিত বক্তব্যে আরো বলা হয়, “সম্প্রতি নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির উপ-উপাচার্য প্রফেসর এ এন এম মেশকাত উদ্দিনকে পিএইচি জালিয়াতির অভিযোগে বরখাস্ত করা হয়েছে। অথচ একই অভিযোগে অভিযুক্ত একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. শাহিনুর রহমান একজন প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতার ছত্রছায়ায় ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে ভুয়া পিএইচডি নিয়েই স্বপদে বহাল তবিয়তে আছেন এবং তিনি একজন দুর্নীতিবাজ হয়েও উপাচার্য হওয়ার পাঁয়তারা করছেন।

এ ধরনের একজন দুর্নীতিবাজ শিক্ষক বিশ্ববিদ্যালয়ের সর্বোচ্চ পদে আসীন হলে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক কর্মকান্ড মারাতœকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হবে। তাই অনতিবিলম্বে আমারা সংশ্লিষ্ট সকল কর্তৃপক্ষের নিকট প্রফেসর ড. শাহিনুর রহমানের পিএইচডি জালিয়াতি তদন্তের জন্য একটি নিরপেক্ষ এবং শক্তিশালী তদন্ত কমিটি গঠনের জোর দাবী জানাচ্ছি।

এসময় অন্যান্যদের মধ্যে আরো উপস্থিত ছিলেন আওয়ামীপন্থী শিক্ষক সংগঠন শাপলা ফোরামের একাংশের সাভাপতি প্রফেসর ড. মাহবুবুল আরেফিন, বঙ্গবন্ধু পরিষদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. রুহুল কুদ্দুস মোহাম্মদ সালেহ, ইবি শিক্ষক সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক প্রফেসর ড. হারুণ-উর-রশিদ আশকারী, ফলিত বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. শামসুর আলম, পরিবহণ প্রশাসক প্রফেসর ড. সাইদুর রহামন, প্রেস প্রশাসক ড. রবিউল হোসেন, সাদ্দাম হলের প্রভোস্ট প্রফেসর ড. আশরাফুল আলম, বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হলের প্রভোস্ট প্রফেসর ড. অশক কুমার চক্রবর্তিসহ অনেকে।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *