স্বামীদের জন্য সেক্সডল কিনছেন স্ত্রীরা!

01

প্রথম সকাল ডটকম ডেস্ক: বয়স হয়েছে। যৌন সম্পর্কে এখন আর আকর্ষণ বোধ করেন না। কিন্তু স্বামীদের এখনো আকর্ষণ রয়েছে যৌন সম্পর্কের প্রতি। স্বামীরা যাতে যৌন চাহিদা পূরণ করতে পারেন সেজন্য তাদের সেক্সডল কিনে দিচ্ছেন চীনের স্ত্রীরা। চীনের জিয়ান প্রদেশে সেক্স ডল বিক্রির দোকান রয়েছে প্রায় দুই হাজারটি।

দোকানের পরিমাণ বেশি হলেও কমতি নেই বিক্রির। আর এর কারণ হিসেবে দেখা গেছে বৃদ্ধ স্ত্রীদের স্বামীর যৌন চাহিদা পূরণ করানোর জন্য সেক্স ডল কিনে দেওয়ার বিষয়টি। ফেং নামের এক সেক্স ডল বিক্রেতা বলেন, ১৯৯৮ সালে তিনি যখন প্রথম সেক্স ডল বিক্রি শুরু করেন তখন বছরে ১০০ এর মতো সেক্সডল বিক্রি হতো। কিন্তু এখন সে সংখ্যা এক হাজার ছাড়িয়ে গেছে।

তিনি বলেন, এই এলাকাতে প্রতি বছর প্রায় ১০ হাজার সেক্স ডল বিক্রি হয় এবং এই প্রবনতাটা অন্য এলাকাতেও ছড়িয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, লোকজন মনে করেন যৌনতার বিষয়গুলো গোপনই থাকা উচিত এজন্য তারা এ বিষয় নিয়ে কথাও বলতে চান না। বিশেষ করে নিজেদের যৌন জীবন নিয়ে তো একেবারেই না।

ঝাং নামের ৬০ বছর বয়সী এক ব্যক্তি বলেন, ৫০ এর পর আমার স্ত্রী যৌন মিলনের প্রতি আগ্রহ পাচ্ছিলেন না তাই তিনি আমার জন্য একটি সেক্স ডল নিয়ে আসেন। কিন্তু এ বিষয়টাতে আমার নিজেকে খুব অপরাধী বলে মনে হয় এবং আমি সেক্স ডলের প্রতি অস্বীকৃতি জানাই। ফেং বললেন, বৃদ্ধরা ছাড়া অন্যরাও কিনছেন সেক্স ডল।

এদের মধ্যে বিশেষ করে তরুণ এবং অনেক দিন ধরে সম্পর্কের বাইরে থাকা লোকেরা এবং যারা অন্য শহর থেকে এসে কাজ করেন তাদের সংখ্যাই বেশি। তিনি আরো বলেন, সঙ্গীনির মৃত্যুর পর অনেক বৃদ্ধই সঙ্গীর জন্য বেঁছে নিচ্ছেন সেক্স ডলকে। লি নামের এক বিধাবাও সেক্স ডলকে ব্যবহার করেন সঙ্গী হিসেবে। তিনি দাবি করেন, তিনি শুধুমাত্র কয়েকবার ডলটির সাথে যৌন মিলন করেছেন। ডলটিকে তিনি তার স্ত্রীর পোশাক পড়ান এবং মাঝে মাঝে তার সাথে বসে চা পান করেন। সেক্স ডলের দামের ক্ষেত্রে রয়েছে ভিন্নতা। ১০০ ইউরো থেকে শুরু করে হাজার ইউরোর উপরে রয়েছে এর দাম।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *