এলো কেশে সে

আরিফুল ইসলাম জয়

সে তো রয়নি মনের খাঁচায়, চলে এসেছে কত না দুর মরুভুমির কাঁটাময় পথ পারি দিয়ে। হ্যাঁ, এসেছে সে মনের দুয়ারে, কত না আকাঙ্খা আর স্বপ্নমাখা হৃদয় নিয়ে।

ছিল যে সে চোখের পলকে, পারিনি তার থেকে মুখ ফেরাতে, কি অপরুপা মায়াবতী! হ্যাঁ, সে সেই মায়াবতী। যাকে পাওয়ার আশায় কত না পাহাড়-পর্বত-গিরি, সাগর, মরুভুমি দিয়েছি পারি, থেকেছি কত না ভীতিকর পাহাড়ের গুহায়, তাকিয়ে থেকেছি অপলক ঐ দুর সাগরের নীলে।

হ্যাঁ, সে এখন চোখের পলকে, পারছি না মনের চোখটা তার পানে হতে সরাতে। একি হল?

আমার আমাতে নাই, চলে গেছি ঐ নীল আকাশের স্বপ্নীল মেঘের ভেলায়।

তার রুপের আর কি বলি? তার যে কোন তুলনা নেই, ইচ্ছে করছে দেই তার কেশের খোপায়, আফ্রিকার গহীন বনের কোন অজ্ঞাত ফুল, হেসে বলি, মন খুলে, তুমি কি সেই জন?

যার অপেক্ষাতে কত না একাকি নিরবে কেটেছে নিঃসঙ্গ দিন, একাকি রাত, কোন ঝিঁঝিঁ পোকার গান শুনে, মিটিমিটি জোনাকিরা এসেছে হ্যালির ধুমকেতুর মত কত না যুগ যুগ পর।

তবুও নেই নি কেউ আমাকে তার হৃদয়ে তুলে, হ্যাঁ, তুমি কি সেই জন?

সেই স্বপ্নপরীর মত, কাছে এসে, এলো কেশে সামনে দাড়িয়েছো!!

This website uses cookies.