ব্রা পরার সমস্যা ও তার সমাধান

01 (3)প্রথম সকাল ডটকম ডেস্ক: নারীরা ব্রা পরার সময় একটি বিরক্তিকর সমস্যার সম্মুখীন হন, বিশেষ করে যারা একটু ভারী গড়নের অধিকারিণী ও যারা একটু বেশি টাইট ব্রা পরেন। সমস্যাটি হলো ব্যাক ফ্যাট বা পিঠের বিচ্ছিরি মেদ। ব্রা পরার পর পিঠের মাঝখানে যেখানে ব্রায়ের স্ট্রাপ রয়েছে, সেখানটি ফুলে থাকে বা ভাঁজ পড়ে থাকে বেশীরভাগ নারীর ক্ষেত্রেই। এই সমস্যাটি আপাত দৃষ্টিতে খুব বড় সমস্যা নয়। এটি এমন কোনো ব্যাপার নয় যে পুরো পৃথিবীর চোখে পড়ছে, এটি শুধুমাত্র যিনি অনুভব করছেন তিনিই বুঝতে পারছেন। তারপরও এই সমস্যাটির সমাধান করা জরুরী। কেন জানতে চান? যে কারণে এই সমস্যার সমাধান জরুরীঃ- ব্রা পরার পর পিঠের মাঝে ব্রা স্ট্রিপের কাছে মাংসপেশি ফুলে উঁচু হয়ে যাওয়ার এই ব্যাপারটি মূলত অনেকগুলো কারণে হয়ে থাকে। প্রথম কারণ হচ্ছে মেদ। এবং দ্বিতীয় কারণ হলো মেদের নিচের মাংসপেশি যাকে বলা হয়ে থাকে ল্যাটিসসিমাস ডোরসি বা ল্যাটস। ওমান’স স্ট্রেন্থ ন্যাসন এবং লাইফ টু গেট লিন বইয়ের লেখক হলি পারকিন্স বলেন, ‘সাধারণত নারীদেহের এই ল্যাটস অর্থাৎ মেদের নিচের মাংসপেশি অনেক দুর্বল থাকে’। যখন মাংসপেশি অনেক শক্ত এবং সুগঠিত থাকে তখন ফ্যাট এবং তার উপরের চামড়া অনেকটা স্মুদ অর্থাৎ মসৃণ দেখায়। যখন মেদের নিচের মাংসপেশি দুর্বল থাকে এবং সঠিকভাবে সুগঠিত থাকে না তখন ফ্যাট অংশটুকু উঁচু হয়ে ফুলে উঠার প্রবণতা দেখায়। এই ফ্যাটের নিচের মাংসপেশি অর্থাৎ ল্যাটস আমাদের দেহের বিশাল অংশ জুড়েই থাকে যা আমরা হাত মাথার উপরে নেয়ার সময় কাজে লাগাই। সুতরাং এই ল্যাটসগুলোর ব্যায়াম করলে আমাদের চলাফেরা অনেক বেশি সহজ হবে এবং একই সাথে আমাদের মেটাবোলিজম সিস্টেম উন্নত হবে। যা করতে হবেঃ- হ্যান্ডস ডাউন ব্যায়ামটি সবচাইতে কার্যকরী ব্যায়াম, মহিলাদের এই ল্যাটসের জন্য বলে জানান পারকিন্স। এই ব্যায়ামটিকে বলা হয় ‘narrow grip lat pulldown’। এই ব্যায়ামটি নিয়মিত করলে মেদের নিচের মাংসপেশি সুগঠিত হবে। ব্যায়ামটি করতে হলে পা মেঝেতে সমতল রেখে একটি ল্যাট পুলডাউন স্টেশনে বসে নিন। এবার দুহাতের মাঝে ৮ ইঞ্চি দূরত্ব রেখে উঁচু করে বারটি টেনে নিন। কিছুটা পেছন দিকে হেলে বারটি নিজের বুকের উপর পর্যন্ত টেনে নিন। এভাবে ৩ সেটে ১৫ বার করে করুন। প্রতি সেটের মাঝে ৩০ সেকেন্ড সময় নিন। এই ব্যায়ামটি প্রতি সপ্তাহে ২/৩ বার করুন।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *