বগুড়ায় যৌথ বাহিনীর অভিযানে ১৮জন গ্রেফতার ককটেল ও দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার

000আব্দুল লতিফ (বগুড়া): বগুড়ায় যৌথ বাহিনীর এক অভিযানে শহরের একটি পরিত্যক্ত বাসা থেকে ১৩টি ককটেল ও ১৮টি দেশীয় ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। গ্রেফতারকৃত যুবদল কর্মী নয়নের স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে এসব উদ্ধার করা হয় বলে দাবি করেছে পুলিশ। সোমবার দুপুরে বগুড়া পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে আয়োজিত এক প্রেসব্রিফিং এ পুলিশ সুপার মোজাম্মেল হক পিপিএম জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রোববার বিকেলে শহরের নিশিন্দারা মধ্যপাড়ার আবদুর রহমানের ছেলে যুবদল কর্মী নয়ন কে (২৮) গ্রেপ্তার করে যৌথ বাহিনী। পরে তার স্বীকারোক্তির ভিত্তিতে রোববার দিবাগত রাত পৌনে একটার দিকে শহরের ঝোপগাড়ী এলাকায় জনৈক হাজি মফিজ উদ্দিনের একটি পরিত্যক্ত বাড়ি থেকে ১৩টি ককটেল এবং ১৮টি রাম দা ও চাপাতি উদ্ধার করা হয়। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে গ্রেফতারকৃত নয়ন জানায়, এলাকার ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাজু, জামাত সমর্থিত শ্রমিক সংগঠনের নেতা উজ্জ্বল এবং সদর থানা ছাত্রদলের সভাপতি সরকার মুকুলের নেতৃত্বে এই এলাকায় গাড়ি ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটে। উদ্ধারকৃত ককটেল ও ধারালো অস্ত্রগুলো ছাত্রদল নেতা সরকার মুকুলের বলেও সে পুলিশকে জানিয়েছে। বগুড়া জেলা পুলিশের অব্যাহত অভিযানে নাশকতা, ভাংচুর, হামলা অগ্নিসংযোগ এর ঘটনায় ১৮ জন ২০দলীয় নেতা কর্মী সহ বিভিন্ন অভিযোগ, মামলা ওয়ারেন্ট মূলে ৪৪ জন গ্রেপ্তার করা হয়েছে। জেলা পুলিশের মিডিয়া সেলের সমন্বয়কারী এএসপি (সদর) গাজীউর রহমান সেমবার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান রোববার বিকেল থেকে সোমবার সকাল পর্যন্ত বিভিন্ন অভিযানে ৪৪জনকে গ্রেপ্তার করা হয়। এর মধ্যে নাশকতার অভিযোগে ১৮জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েংছে। এদের মধ্যে শেরপুর থানার পুলিশ সোমবার সকালে অভিযান চালিয়ে উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি শহিদুল ইসলাম, শাহবন্দেগী ইউনিয়ন যুবদলের সভাপতি আসাদ মোল্লাহ ও বিশালপুর ইউনিয়ন বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মুনজিল হোসেনকে গ্রেপ্তার করেছে। তাদের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে বলে নিশ্চিত পুলিশ নিশ্চিত করে।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *