এই ঝড়ো দিনে

52

সুনীতি দেবনাথ (ত্রিপুরা,ভারত)

গন্তব্য কোথায় জানিনা
নপুংসক জাতি আর দেশে
অন্তঃসারশূন্য পথে নিরুদ্দেশ যাত্রা।
সার্বভৌমত্ব বন্ধক রেখে ভিক্ষেপাত্র হাতে
চলাটাই একমাত্র নির্দেশিত পথ।

এমনি প্রলয় যাপনকালে
কবিতার নির্বাসন আমাজনের
রৌদ্রহীন স্যাঁতসেতে অরণ্যের গহনে
এখানে কবিতার নিষিদ্ধ প্রবেশাধিকার,
কি নিয়ে কবিতা হবে বলো?
প্রেম দেহ খোঁড়াখুড়ি রোমান্স
শতাব্দীর গলিত পটচিত্রে শবের
দুর্গন্ধ মথিত আবর্জনা!
এনিয়ে সেই বিমল সৃষ্টির প্রান্তরে
চলাচল আরতো চলেনা।
প্রেম উড়ে পুড়ে হয়ে গেছে ছাই
আছে শুধু বিকৃত জান্তব কামনা।

শীতে সব পাতা ঝরে পড়ে গেলে
বসন্ত এলেগেলে পলাশ কুঁড়ির ঘুম
কখনো ভাঙ্গেনা অথবা ঝরেই যায়,
কিশলয় পেখম মেলার আগে মরে যায়
উড়ে পুড়ে যায়!

আসন্ন প্রলয় ঝড়ে একমাত্র লাতিন
আমেরিকার বার কোটি শিশু কাঁপে
মৃত্যুর অমোঘ বিভীষিকায়, সমগ্র বিপুল বিশ্বসংখ্যা কত হবে গুনেছি
কি কেউ কোনদিন? একদিন বুড়ো
ম্যালথাস দিয়েছিলেন জন বিস্ফোরণ
মোকাবেলার সহজ সমাধান সূত্র,
অকেজো আজ তা।

আজকের বিপুল জনোচ্ছ্বাসে
তাই অভিনব শিশু হত্যার ফর্মূলা!
কোমল স্ফটিক স্বচ্ছ সব মানসিক
প্রবণতা হত্যার পর ফুলেল নিষ্পাপ
পবিত্র শিশুদের হত্যায় তালিবানী
অকম্প হাতের মত হাজার হাজার
পাশবিক হাত হত্যা করে। কত কোটি
শিশু আজ ঝড়ের তাণ্ডবে বিপন্ন
বিস্ময়ে বিস্ফারিত চোখে সভ্যতার
অসভ্যতা দেখে?

প্রেমের কবিতা তবু রোমান্সের
শিকড়ের সাথে কাতারে চলে বিজয় মিছিলে।
কাঁপে নাতো হাত?
বিবেক মুখোশ পরে থাকে।
শুধু বিলাসী হুল্লোড়ে দেখানো কান্না
মুখে কালো ব্যাজ মোমবাতির নরম মিছিল
আর মিিডয়ার গর্জন টি আর পি বাড়ানো।
তারপর?
বারো আর হাজারো কোটি শিশু
কেবলই ঝড়ের দিগন্তে হেঁটে চলে।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *