বগুড়ায় ২০ দলীয় জোটের সমাবেশে পুলিশের গুলিবর্ষন

54আব্দুল লতিফ, (বগুড়া): বগুড়ার ধুনটে অনির্দিষ্টকালের অবরোধের সমর্থনে ২০দলীয় জোটের বিক্ষোভ সমাবেশ চলাকালে পুলিশের গুলি বর্ষন ও লাঠিচার্জে অন্তত ৩০ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছে। এছাড়া যুবদল ও শিবির নেতা সহ ৪জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। শুক্রবার সকাল সাড়ে ১১টায় অবরোধ চলাকালে হুকুমআলী বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে সদর ইউনিয়ন বিএনপির সাধারন সম্পাদক সহ ৫ জনকে আটক করেছে। স্থানীয়সূত্রে জানাযায়, অবরোধের চতুর্থ দিন শুক্রবার সকালে জেলা বিএনপির যুগ্ন সম্পাদক ও ধুনট উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব তৌহিদুল আলম মামুনের নেতৃত্বে বিক্ষোভ মিছিল বের হয়। মিছিলটি হুকুমআলী বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় পৌছালে পুলিশ বাঁধা দেয়। পরে পুলিশের বাঁধা উপেক্ষা করে ২০দলীয় জোট সমাবেশের প্রস্তুতি নেয়। সমাবেশ শুরু করলে পুলিশ ৫ রাউন্ড গুলি বর্ষন ও লাঠিচার্জ করে নেতাকর্মীদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়। এসময় পুলিশের গুলিতে উপজেলা যুবদলের সাবেক যুগ্ন আহবায়ক আমিনুল ইসলাম, শিবির নেতা জাফর, ছাত্রদল নেতা রাজু ও রঞ্জু গুলিবিদ্ধ হয়। এছাড়া পুলিশের লাঠিচার্জে বিএনপি নেতা রফিকুল ইসলাম সহ ২৬জন নেতাকর্মী আহত হয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ধুনট সদর ইউনিয়ন বিএনপির সাধারন সম্পাদক ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের স্বামী বনি আমিন, উপজেলা শ্রমিকদলের সাধারন সম্পাদক মাহমুদুল হাসান বিদ্যুৎ, যুবদল নেতা হান্নান, সেলিম ও আলমকে আটক করেছে। এরআগে আবরোধের সমর্থনে উপজেলার বিভিন্ন সড়কে পিকেটাররা ১০টি সিএনজি ও অটোরিকসা ভাংচুর করেছে। এরিপোর্ট লেখা পর্যন্ত থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। এবিষয়ে জেলা বিএনপির যুগ্ন সম্পাদক ও ধুনট উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব একেএম তৌহিদুল আলম মামুন বলেন, আমাদের শান্তিপূর্ণ সমাবেশে পুলিশ লাঠিচার্জ ও গুলিবর্ষন করে ৩০জন নেতাকর্মীকে আহত করেছে এবং কোন মামলা ছাড়াই আমার ৫জনকে নেতাকর্মীকে আটক করেছে। ধুনট থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) জিয়াউর রহমান পিপিএম জানান, অবরোধ চলাকালে বিএনপির নেতৃবৃন্দ সমাবেশের নামে বিশৃঙ্খলা করলে গুলি বর্ষন ও লাঠিচার্জ করে ছত্রভঙ্গ করে দেওয়া হয়। এসময় ৫জনকে আটক করা হয়েছে।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *