আমার স্বদেশ ভাসে

52

সুনীতি দেবনাথ (ত্রিপুরা,ভারত) ৬/০১/২০১৫

আমার স্বদেশ ভাসে কলার মান্দাসে
গাঙুরের কালসেপানা ঢেউয়ের তালে
অতল গভীর জল অন্দরে টানে
ঢেউয়ের মাতনে ডিঙা তবু ভেসে চলে
বেহুলা চলেছে ভেসে স্বর্গরাজ্যে যাবে
কালো জল কালসাপ কুণ্ডলী পাঁকায়
বেহুলার খোলা চুল ফোঁসে ক্রোশে
হিংস্র বাতাসে।

বেহুলা স্বর্গে যেতে চায়
অমৃতের ভাগ সে চায়
এতদিন দেবতার ছিল শুধু
একচ্ছত্র অধিকার অমৃতের।
মানব কন্যার ঘোষণা আমি
অমৃত চাই চাই অমৃতের অধিকার!

মৃত লখিন্দরের যৌবন বিলাসিত দেহ
পচে গলে খসে খসে পড়ে জলে ভাসে
স্রোতের টানে কোথায় হারায়।
স্বর্গের পথে ঘাটে ঘাটে কতযে ছলনা
বেহুলার চোখে জল নেই কেবলি আগুন,
আগুনে পোড়ে তবু চলে।

বেহুলা যায়নি স্বর্গে জেনেছিল
স্বর্গরাজ্য ছলনা করে জানে ছলাকলা
মাটির স্বদেশে মাটি হয়ে মিশে যেতে
ফিরে এসেছিল ফেরেনি লখাই।
মাটির ঘাটের তীরে পাষাণ চাঁদ
কঠিন ইস্পাত চোখে কঠিন আগুন
ভস্ম করে পদ্মবন পদ্মাবতীর নিবাস,
ঘৃণা করে মনসারে ঘৃণা করে নন্দনকানন।
চোখে নেই জল,
বুকে জ্বলে হুতাশন সপ্ত পুত্রের শ্মশান
নতমুখী পরাজিতা বেহুলাকে
পরম স্নেহের পাশে টেনে নেয় বুকে।

মর্ত্য সেদিন হারে নাই জিতেছিল,
হারেনি মানবকন্যা স্বর্গের ছলনায়,
স্বর্গকে বিদায় দেয় বেহুলা প্রচণ্ড ঘৃণায়।
তুমি স্বর্গ থাকো স্বর্গরাজ্যে মহিমা নিয়ে,
আমি মাটির কন্যা মাটিতেই গড়ে নেবো,
আমার স্বদেশের মাটিতে,
আর এক মহিমার স্বর্গ ধুলোয় মলিন,
মানুষের বিজয় পতাকা উড়াব আমি
আমার মাটিতে, আমি গর্বিতা বেহুলা!

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *