গৃহিনী কি কোন পেশার নাম?

প্রথম সকাল ডটকম: গৃহিণী বা হাউজ ওয়াইফ শব্দটার সাথে আমাদের কম বেশি সবারই জানাশোনা আছে। এটা একটা পেশার নাম। পেশা কি? পেশা কেন? কাকে পেশা বলে সেসব প্রশ্নে আমরা যেতে চাচ্ছি না। আমরা জানতে চাই অন্য কিছু। নারীর “গৃহিনী” পেশা বা শব্দটা আসলে কী? এবং জেনে নেয়া যাক কী করে এই পেশার মানুষ? যারা গৃহের কাজে দিন “গুজরান” করেন। মানে সূর্যোদয় থেকে সূর্যাস্ত পর্যন্ত যারা গৃহের সৌন্দর্য বৃদ্ধি থেকে শুরু করে, রান্নাবাড়া, পরিস্কার, পরিচ্ছন্নতা, সন্তান লালন পালন ইত্যাদি কার্য সমাধা করে থাকেন। তাই তো? আচ্ছা আমাকে একটা প্রশ্নের উল্টর দেন আপনার পেশা কি? চাকরি? শিক্ষকতা? ব্যাংক কর্মকর্তা? উকিল? নাকি অন্য কিছু? যা-ই হোক না কেন, মাস শেষে তো সেলারি পাচ্ছেন নাকি? কিংবা যদি আপনার পেশা হয় ব্যবসা, তাহলেও তো মাস শেষে আপনার ব্যবসার একটা লভ্যাংশ আপনি ভোগ করছেন, তাই না? তাহলে আমরা কী বুঝলাম? পেশার সাথে অর্থের সংযোগ রয়েছে। চমৎকার। চলুন এবার জেনে নেয়া যাক আরও কিছু তথ্য গৃহিণী পেশার নারী কি প্রতিদিন আট ঘণ্টা কাজ করেন? তিনি কি দুপুরে লাঞ্চ ব্রেক পান? তিনি কি টিএ/ডিএ পান? তিনি কি বাৎসরিক ছুটি, মাসিক ছুটি পান? বেড়ানোর বাবদ ভাতা পান? উৎসব বোনাস পান? জানি উপরের কোনো প্রশ্নেরই জবাব আপনার কাছে নেই। কিংবা থাকলেও সেগুলো সবই নেগেটিভ; পজেটিভ কিছু আপনি বলতে পারবেন না। কেমন করে বলবেন, থাকলেই তো, নাকি? আসলে সত্যিকার অর্থে গৃহিণী কোনো পেশা হতে পারে না। এটা একজন নারীকে শুধু অপমানিত করে বলেই আমার বিশ্বাস। প্রকৃত অর্থে পেশা বলতে সেটাই বুঝানো হয় যা করে কেউ অর্থের বিনিময়ে সুনির্দিষ্ট কিছু নিয়মকানুন মেনে। কিন্তু ভেবে দেখুন “গৃহিনী” নামক কথিত সেই পেশায় কি আদৌ সেরকম ব্যাপার আছে? বরং এটি একটি অমানবিক কার্যক্রম বলেই প্রতীয়মান হওয়া উচিত। আরও উজ্জ্বলভাবে বলতে গেলে নিচের কারনগুলো দেখুন এবং নিজেই বিচার করুন। গৃহিনী কোনো পেশা নয় কারণ (১) মাস শেষে এখানে সেলারি হয় না।(২) এখানে আট ঘন্টা ডিউটির কোনো নিয়ম নেই।(৩) টিএ/ডিএ’র সিস্টেম নেই।(৪) লাঞ্চ ব্রেক নেই, সাপ্তাহিক ছুটি নেই, অসুস্থ্যতার দোহাই দিয়ে ছুটি নেই, উৎসাহ ভাতা, বোনাস ভাতা কিচ্ছু নেই।(৫) মাতৃত্বকালীন ছুটি নেই। কী অমানবিক ভাবুন তো! তারপরও কি আপনি বলবেন গৃহিণী একটা পেশার নাম? সে আপনি পুরুষ-ই হোন আর নারী-ই হোন। এই বিভাগে লেখা সম্পুর্ন  দায় লেখকের। এর জন্য সম্পাদক দায়ী নন।

This website uses cookies.