কাইয়ুম চৌধুরীর ইন্তেকাল

প্রথম সকাল ডট কম: স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত বরেণ্য চিত্রশিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী আর নেই(ইন্নালিল্লাহি… রাজিউন)। বেঙ্গল ফাউন্ডেশন আয়োজিত উচ্চাঙ্গসংগীত উৎসবের মঞ্চে হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। এরপর তাকে রাজধানীর সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। রবিবার রাত ৮টা ৪০ মিনিটে আর্মি স্টেডিয়ামে চলমান বেঙ্গল উচ্চাঙ্গসংগীত উৎসবের চতুর্থ দিনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তৃতা রাখার সময় অসুস্থ হয়ে পড়েন তিনি। এরপর তাকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নেওয়া হয়। ক্যান্টমেন্ট থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আতিকুর রহমান গণমাধ্যমকে শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরীর মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করেন। এর আগে উচ্চাঙ্গসংগীত উৎসবের আয়োজকরা গণমাধ্যমকে জানান, বক্তৃতা করার সময় শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী হঠাৎ মাথা ঘুরে পড়ে যেয়ে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। এ সময় মাথার পেছনে আঘাত পান তিনি। তার মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদ এডভোকেট, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং বিএনপি চেয়ারপারসন ও সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। তারা তার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জানান। কাইয়ুম চৌধুরী ১৯৩৪ সালের ৯ মার্চ ফেনী জেলায় জন্মগ্রহণ করেন। ক্ষয়িঞ্চু জমিদার পরিবারে কাইয়ুম চৌধুরী জন্মগ্রহণ করেন যেখানে অর্থের জৌলুস না থাকলেও শিক্ষা ও উদার মানসের জোরদার অবস্থান ছিল। তিনি বাংলাদেশের একজন স্বনামধন্য চিত্রশিল্পী ছিলেন। ১৯৮৬ খ্রিস্টাব্দে তাকে একুশে পদক প্রদান করা হয়। মক্তবে কাইয়ুম চৌধুরীর শিক্ষার হাতেখড়ি, তারপর ভর্তি হন চট্টগ্রামের নর্মাল স্কুলে। এরপর কিছুকাল কুমিল্লায় কাটিয়ে চলে যান নড়াইলে। চিত্রা পাড়ের এই শহরে কাটে তার তিনটি বছর। ১৯৪৯ সালে আর্ট ইনস্টিটিউটে ভর্তি হয়ে কাইয়ুম চৌধুরী কৃতিত্বের সঙ্গে শিক্ষা সমাপন করেন ১৯৫৪ সালে। তিনি শিক্ষক হিসেবে পেয়েছিলেন শিল্পচার্য জয়নুল আবেদীনকে।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *