ডিআরইউ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শেষ

55প্রথম সকাল ডট কম(ঢাকা): ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) ২০১৫ সালের কার্যনির্বাহী কমিটির নির্বাচনের ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। উৎসব মুখর পরিবেশে ভোটাররা ভোট দেন। রবিবার সেগুনবাগিচায় ডিআরইউ কার্যালয়ে সকাল ৯টা থেকে ভোটগ্রহণ শুরু হয়ে শেষ বিকাল ৫টায়। রাতে ফলাফল ঘোষণা করবে নির্বাচন কমিশনার। নির্বাচনে সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন দৈনিক ইনকিলাবের বিশেষ প্রতিনিধি সাখাওয়াত হোসেন বাদশা, দৈনিক ইত্তেফাকের বিশেষ প্রতিনিধি জামাল উদ্দীন ও ৭১ টিভির চিফ এ্যাসাইনমেন্ট এডিটর মনির হোসেন লিটন ও সকালের খবরের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক আজমল হক হেলাল। সহ-সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন দ্য ইন্ডিপেনডেন্টের রফিকুল ইসলাম আজাদ ও বাংলার চোখের সাব্বীর মাহমুদ। সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন দৈনিক যুগান্তরের জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক সফিউল আলম রাজা, ইন্ডিপেনডেন্ট টিভির জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক ইলিয়াস হোসেন, বিবিসি বাংলার জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রাকিব হাসনাত সুমন ও দেশ টিভির এ্যাসাইনমেন্ট এডিটর নজরুল কবীর। যুগ্ম সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ডেইলি স্টারের ফেরদাউস মোবারক ও জিটিভির সালাম ফারুক। সাংগঠনিক সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আলোকিত বাংলাদেশের রিয়াজ চৌধুরী ও ডেইলি সানের শওকত আলী খান। দফতর সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন বাংলাদেশ প্রতিদিনের মোস্তফা কাজল ও প্রাইম নিউজের মেহেদী আজাদ মাসুম। প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন দৈনিক নয়া দিগন্তের মঈনুদ্দীন খান ও দৈনিক অর্থনীতি প্রতিদিনের কামরুজ্জামান কাজল এবং সৈয়দ সোহরাব। একজন করে প্রার্থী থাকায় অর্থ সম্পাদক পদে দৈনিক নয়া দিগন্তের আশরাফুল ইসলাম, নারীবিষয়ক সম্পাদক পদে আইরীন নিয়াজী মান্না, আপ্যায়ন সম্পাদক পদে দৈনিক আমাদের অর্থনীতির আমিনুল হক ভূঁইয়া, সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে দৈনিক কালের কণ্ঠের আজিজুল পারভেজ ও ক্রীড়া সম্পাদক পদে বদরুল আলম খোকন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী হয়েছেন। কার্যনির্বাহী সদস্যপদে নির্বাচিত ৭ জন হলেন দ্য রিপোর্ট টুয়েন্টিফোর ডটকমের সাজিদা ইসলাম পারুল, এবিসি রেডিওর শাহনাজ শারমীন, ঢাকা টাইমসের হাবিবুর রহমান, দৈনিক মানবকণ্ঠের হরলাল রায় সাগর, আরটিভির ফারুক খান, ওসমান গনি বাবুল ও দৈনিক সংগ্রামের কামাল উদ্দীন সুমন। নির্বাচনে মোট ২১টি পদে ৩২ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে ৬টি সম্পাদকীয় পদে একক প্রার্থী থাকায় এবং একটি পদে কোনো প্রার্থী না থাকায় ৭টি পদে নির্বাচন হচ্ছে না। এ ছাড়া কার্যনির্বাহী কমিটির ৭টি সদস্য পদের বিপরীতে ৭ জন প্রার্থী হওয়ায় কমিটিতে ক্রম নির্ধারণের জন্য ভোটগ্রহণ করা হবে। এবারের নির্বাচনে মোট ভোটার সংখ্যা এক হাজার ৩০৩ জন।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *