নবীগঞ্জ-বাহুবলের উন্নয়নে কাজ করে যাবো : মুনিম

নবীগঞ্জ প্রতিনিধি: হবিগঞ্জ-১ (নবীগঞ্জ-বাহুবল) নির্বাচনী এলাকার সংসদ সদস্য এম এ মুনিম চৌধুরী বাবু বলেছেন,নবীগঞ্জ-বাহুবলের উন্নয়নে নিরলস ভাবে কাজ করে যাব। এ ক্ষেত্রে তিনি সাংবাদিকদের পরামর্শ ও সাবর্কি সহযোগিতা কামনা করেন। তিনি বলেন নবীগঞ্জ-বাহুবলের উন্নয়নে দলমত নির্বিশেষে সকল শ্রেণী-পেশার মানুষের সহযোগিতার প্রয়োজন। তিনি গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সাথে এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। নবীগঞ্জ প্রেসক্লাব সভাপতি এটিএম নুরুল ইসলাম খেজুরের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক উত্তম কুমার পাল হিমেলের পরিচালনায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন নবীগঞ্জ থানার অফিসার ইনর্চাজ মোঃ লিয়াকত আলী,উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ চৌধুরী। অন্যানের মাঝে বক্তব্য রাখেন প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ফখরুল আহসান চৌধুরী,সাবেক সভাপতি প্রভাষক মোহাম্মদ আলাউর রহমান,সাবেক সভাপতি এটি এম সালাম,সহ-সভাপতি আশাহিদ আলী আশা,কোষাধ্যক্ষ মোঃ সেলিম তালুকদার,সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক এম মুজিবুর রহমান,সাবেক যুগ্ম সম্পাদক সরওয়ার শিকদার,সলিল বরণ দাশ,জাকিরুল ইসলাম প্রমূখ। প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এমএ মুনিম চৌধুরী বাবু আরো বলেন,আমি কোন দল করি সেটা বড় কথা নয়, আমি নবীগঞ্জ-বাহুবলের এমপি হিসেবে দলমতের উর্ধ্বে উঠে এলাকার উন্নয়নে কাজ করতে চাই। তিনি বলেন ইতিমধ্যে নির্বাচনী এলাকার রাস্তা,ঘাট,শিক্ষা ও স্বাস্থ্য বিভাগে ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। আগামীতে আরো ব্যাপক উন্নয়নের পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। নবীগঞ্জ-বাহুবল নির্বাচনী এলাকাকে উন্নয়নের মডেল হিসেবে রূপান্তরিত করবো ইনশাআল্লাহ। ইতিমধ্যে বাহুবল সদরকে পৌরসভায় উন্নীত করার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। আশা করি ২০১৫ সালের মধ্যে বাহুবলকে পৌরসভা হিসাবে ঘোষণা দেয়া হবে। এমপি মুনিম চৌধুরী বাবু বলেন,আমার নির্বাচনী এলাকার প্রত্যেক গ্রামকে বিদ্যুতায়নের আওতায় আনতে চাই। যাতে কেউ বিদ্যুৎ বিহীন অবস্থায় না থাকে। শিক্ষার প্রসার ঘটাতে বিভিন্ন পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে। ইতিপূর্বে বিভিন্ন স্কুল,কলেজ,মাদ্রাসা,মসজিদ ও মন্দিরের ব্যাপক উন্নয়ন হয়েছে। তিনি নবীগঞ্জ প্রেসক্লাবের উন্নয়নে আর্থিক সহযোগিতা ও একটি কম্পিউটার প্রদানের ঘোষণা দেন। মতবিনিময় সভার শুরুতে এমপি মুনিম চৌধুরী বাবুকে ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানান প্রেসক্লাব নেতৃবৃন্দ।

This website uses cookies.