অক্টোবরে হৃদয়-সুজানার বিবাহত্তোর অনুষ্ঠান

014p (4)প্রথম সকাল ডেস্ক: বিয়ের পিঁড়িতে বসলেন জনপ্রিয় সঙ্গীতশিল্পী হৃদয় খান ও মডেল, অভিনেত্রী সুজানা জাফর। দুই পরিবারের সম্মতিতে ১ আগস্ট, শুক্রবার মিরপুরে সুজানার বাসায় বিয়ের আখদ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হয়। আগামী অক্টোবর মাসেই বিবাহত্তোর সংবর্ধনা অনুষ্ঠান হবে বলে রাইজিংবিডিকে জানিয়েছেন হৃদয় খান। এ প্রসঙ্গে হৃদয় খান বলেন- “আমি সুজানাকে দীর্ঘ দিন ধরেই ভালোবেসে আসছি। এ ভালোবাসাকে পূর্ণতা দিতেই শুক্রবার পারিবারিকভাবে বিয়ের কাজটি সম্পন্ন হয়েছে। এতে দুই পরিবারের কাছের লোকজন উপস্থিত ছিলেন। হৃদয় খান আরো বলেন- “আগামী অক্টোবর মাসেই বিবাহত্তোর সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে যাচ্ছি। তবে তারিখ এখনো নির্ধারণ হয়নি। অক্টোবর মাসেই কোন একটা শুভ দিন ধরে অনুষ্ঠানটি আয়োজন করা হবে। সঙ্গীত শিল্পী হৃদয় খান এবং সুজানার প্রেমকাহিনী গত তিন বছর ধরেই শোবিজ অঙ্গনে দারুণভাবে আলোচিত হয়েছে। শুরু থেকেই হৃদয় খান প্রেমের বিষয়টি স্বীকার করলেও সুজানা সম্পর্কটাকে বন্ধুত্ব বলে বারবার এড়িয়ে গেছেন। এর মধ্যে দুজনের বিভিন্ন সময় একত্রে ঘণিষ্ঠ ছবি প্রকাশের পর কেউ কেউ দাবী করেন তারা গোপনে লিভ টুগেদার করছেন। চলতি বছরই হৃদয় খানের বাসায় সুজানার জন্মদিন পার্টি আয়োজন করা হলে শোবিজ অঙ্গনের অনেকেই জোর দাবী তুলেন যে এ জুটি গোপনে বিয়ে করে ফেলেছেন। গত ১০ জুলাই হৃদয় খান তার ফেসবুক স্ট্যাটাসের মাধ্যমে সবাইকে জানান সুজানা তার প্রেমের ডাকে সাড়া দিয়েছেন। এরপরই আলোচনা ভিন্ন দিকে মোড় নেয়। এবার তড়িঘড়ি করে বিয়ের মাধ্যমে নতুন আলোচনার জন্ম দিলেন এ জুটি। আনুষ্ঠানিকভাবে হৃদয়-সুজানার প্রেমের বয়স এখন মাত্র ২০ দিন। তিন বছরের সম্পর্কটাকে হৃদয় খান ভালোবাসা বললেও সুজানা বরাবরই বলেছেন স্রেফ বন্ধুত্ব। আনুষ্ঠানিক ভালোবাসার ২০ দিনের মাথায় গোপনে বিয়ে করাটাকেও সন্দেহের চোখে দেখছেন কেউ কেউ। তবে হৃদয় খানে ভক্তরা বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ জুটির জন্য শুভ কামনা জানাচ্ছেন। হৃদয় খানও ফেসবুকের মাধ্যমের সবার কাছে দোয়া চেয়েছেন। প্রসঙ্গত হৃদয় খানের একটি গানের মিউজিক ভিডিওর মডেল হয়েছিলেন সুজানা। এরপর থেকেই সাত বছরের বড় সুজানাকে ভালো লেগে যায় হৃদয় খানের। সেই ভালো লাগা রূপ নেয় ভালোবাসায়। তিন বছরের সাধনার পর হৃদয় খানের প্রেমের ডাকে সাড়া দেন সুজানা। অতঃপর বিয়ে।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *