ডিশ ব্যবসার জের ধরে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা ভাঙচুর

protom sokal (9)প্রথম সকাল ডেস্ক: ময়মনসিংহের ভালুকায় পূর্ব সূত্রতার জের হিসেবে প্রতিপক্ষরা এক ব্যাক্তির ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানে হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এ সময় দোকানের ক্যাশবাক্স ভেঙে নগদ সাড়ে ১২ লাখ টাকাসহ প্রায় ২০ লাখ টাকার ক্ষতিসাধন করা হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, উপজেলার মাষ্টারবাড়ি গ্রামের রহমাত আলী প্লাজার মালিক রহমাত আলী, রাসেল মন্ডল, রফিকুল ইসলাম ও রাসেল মিয়াকে প্রতিপক্ষ শাহিনের একটি অভিযোগের প্রেক্ষিতে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সোমবার রাত ১২টা সময় মডেল থানার এসআই মিরাজ ও রেজাউল থানায় নিয়ে আসে। থানায় তাদেরকে নিয়ে আসার এক ঘন্টা পর স্থানীয় ডিশব্যবসায়ী এস,এম.এস.এস প্রতিষ্ঠানে মালিক সোহাগ, মনির, বাবুল, সাইফুল ও রফিকসহ ১৫/২০ জনের একটি দল রহমত আলীর মার্কেটের দ্বিতলায় তার নিজস্ব প্রতিষ্ঠান তানিয়া স্যাটেলাইট ও ইলেক্ট্রনিক্স দোকানে হামলা চালিয়ে বিভিন্ন জায়গায় ৭হাজার ডিশের সংযোগ বিচ্ছিন্ন এবং সাটার ভেঙে ব্যবসায় প্রতিষ্ঠানে ভেতরে ঢুকে মালামাল তছনছ করে এবং ক্যাশবাক্স ভেঙে নগদ সাড়ে ১২ লাখ টাকাসহ প্রায় ২০ লাখ টাকার ক্ষতি করে। এ ঘটনায় রহমাত আলী মেয়ের জামাই মনিরুজ্জামান থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেছেন। প্রতিষ্ঠানের মালিক রহমাত আলী জানান, সোহাগ ও সাইফুলসহ কতিপয় ডিশব্যবসায়ী আমাকে দীর্ঘদিন ধরে নানা ধরণের হুমকী দিয়ে আসছিল। তিনি আরো জানান, গত ৩১ মে প্রতিপক্ষরা একদল সন্ত্রাসী নিয়ে একই কায়দায় আমার প্রতিষ্ঠানে হামলা চালিয়ে ডিশলাইন কুপিয়ে তছনছ করে দামি ক্যাবলসহ প্রায় ৫০ লাখ টাকার ক্ষতিসাধন করেছিল। ওই ঘটনায় রহমত আলী বাদি হয়ে ১ জুন ভালুকা মডেল থানায় সোহাগ, সাইফুল, আল আমীন, আরিফ, নয়ন মিয়া, নুরুজ্জামান ও আল আমীনসহ(২) অজ্ঞাত ১০/১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা (নম্বর-৪) দায়ের করেছেন। ভালুকা মডেল থানার ওসি আবুল কালাম আজাদ জানান, উভয় পক্ষের বেশ কয়েকটি মামলা রয়েছে।  এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *