যেসব ভুয়া মুক্তিযোদ্ধার সনদ বাতিল হলো

প্রথম সকাল ডেস্ক: দুজন উপসচিবসহ ৩৫ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীর মুক্তিযোদ্ধা সনদ বাতিল করা হয়েছে। তদন্তে ভুয়া প্রমাণিত হওয়ায় সোমবার দুপুরে মুক্তিযুদ্ধ মন্ত্রণালয়ের এক প্রজ্ঞাপনে এসব সনদ বাতিল করা হয়েছে। যাদের সনদ বাতিল হয়েছে তারা হলেন: জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ওএসডি উপসচিব শেখ আলাউদ্দিন, রেলের এডিজি সোলায়মান চৌধুরী, কৃষি মন্ত্রণালয়ের সহকারী প্রশাসনিক কর্মকর্তা আবদুর রশীদ হাওলাদার, খাদ্য ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা মন্ত্রণালয়ের প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা জয়নাল আবেদিন, করপরিদর্শক দেলোয়ার হোসেন, রেল মন্ত্রণালয়ের শাফিয়ার রহমান, আব্দুল ওয়ারেস, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের আব্দুল আলিম, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের আজহার আলী খান, ভূমি মন্ত্রণালয়ের আ ল ম বজলুর রশিদ, প্রাথমিক ও গণশিক্ষার এ টি এম শাহজাহান, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের দানেশ মিয়া, কৃষি মন্ত্রণালয়ের আব্বাস আলী খান, শুল্ক বিভাগের শেখ মাহবুবুল আলম, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক রঞ্জিত কুমার রায়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের শফিকুল ইসলাম, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক রওশন আলম, সোনালী ব্যাংকের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ এ টি এম আবদুল হাই খান, রাজারবাগ পুলিশ লাইনের বেতার শাখার কনস্টেবল সোলায়মান বিশ্বাস, ঢাকার জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের প্রাক্তন অফিস সহকারী হারুন অর রশিদ খান, মুন্সিগঞ্জ জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের উচ্চমান সহকারী শাহজাদ আজিম, নওগাঁ পৌরসভার আদায়কারী এ কে এম জালাল উদ্দিন, একই পৌরসভার স্বাস্থ্য সহকারী হাশেম আলী, ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়ার প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মজিবুর রহমান, প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক এ কে এম হাবিবুল্লাহ, ঝালকাঠির রাজাপুরের কে এ নিজাহার উদ্দিন খান, চাঁদপুর জেলার টিএসআই নুরুন্নবী পাটোয়ারী, যমুনা অয়েল কোম্পানির প্রাক্তন ম্যানেজার গোলাম রব মোল্লা, সাতক্ষীরার আশাশুনি উপজেলা শিক্ষা অফিসের অফিস সহকারী আবুল হোসেন, মানিকগঞ্জ সিংগাইরের আবু হোসেন মিয়া, কুড়িগ্রাম জেলার উলিপুরের মোহাম্মদ আলী, নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের নুর ইসলাম, সাতক্ষীরার শ্যামনগরের এম এ মজিদ (দুটি সনদের একটা বাতিল), জয়পুরহাটের বেলাল হোসেন আকন্দ ও  টাঙ্গাইল জেলার ঘাটাইলের আব্দুল মালেক।

This website uses cookies.