ফাল্গুনে বাসন্তী ঐন্দ্রিলা

প্রথম সকাল ডটকম ডেস্ক: আজ বসন্ত, তা সে ফুল ফুটুক বা না ফুটুক। শীতের রুক্ষতাকে কাটিয়ে উঠছে প্রকৃতি। গাছে গাছে সবুজ পাতার গজিয়ে উঠার প্রতিযোগিতা। বাতাসেও ফাল্গুনী মাদকতা।

ঋতুর রানী বসন্ত এসে গেছে সবখানে, সব আয়োজনে। আর সবার মতো বসন্তকে বরণ করে নিতে হলদে শাড়িতে বাসন্তী সাজে সজেছেন অভিনয়ের মিষ্টি মুখ ঐন্দ্রিলা আহমেদ।

নিজের ফেসবুকে দিয়েছেন সেই সাজের ছবি। ক্যাপশনে দিয়েছেন কবিতা- ‘রে ভাই ফাগুন লেগেছে বনে বনে , ডালে ডালে ফুলে ফুলে পাতায় পাতায় রে, আড়ালে আড়ালে কোণে কোণে, ফাগুন লেগেছে বনে বনে…..’।

বসন্তের প্রথম দিনে  জানালেন, ‘এই বসন্তে বেশ উচ্ছ্বসিত তিনি। অনেকটা সময় বিরতিতে কাটিয়ে নতুন করে ফিরেছেন প্রিয় আঙিনা, শোবিজে। এখানে অনেক প্রিয় মানুষ, অনেক মধুর স্মৃতিরা তার অপেক্ষাতে ছিলো। নতুন প্রত্যাবর্তনের প্রথম বসন্ত আজ। মন বেশ ফুরফুরা। জানালেন, আরও একটি কারণও।

আজ বসন্তের প্রথম দিনে নতুন করে তিনি ফিরেছেন উপস্থাপক পরিচয়টিতেও। জিটিভিতে প্রচারিত নাটকের ভালোবাসার গান নিয়ে সাজানো অনুষ্ঠান ‘এসো মিলি ভালোবাসার উৎসবে’ প্রচার হবে আগামীকাল ১৪ ফেব্রুয়ারি দুপুর ১২টা ১৫ মিনিটে। এতে ঐন্দ্রিলার নিজের অভিনীত নাটকেরও গানও ছিলো। তাই উপস্থাপক হিসেবে আগ্রহটা ছিলো খানিক বেশি।

আর এই অনুষ্ঠান দিয়ে তিন বছর পর উপস্থাপনাতে ফিরলেন। এর আগে সর্বশেষ ২০১৫ সালে মা দিবসে এসএ টিভির একটি অনুষ্ঠানের উপস্থাপনায় দেখা যায় তাকে। ঐন্দ্রিলা বলেন, ‘বেশ কয়েকটি অনুষ্ঠানের উপস্থাপনার প্রস্তাব এসেছিলো। কিন্তু অনুষ্ঠানের বিষয় ভালো লাগেনি বলে করা হয়ে উঠেনি। জিটিভির অনুষ্ঠানটি ভালোবাসা এবং ভালোবাসা বিষয়ক গানের অনুষ্ঠান।

বিষয়টি ভালো লেগেছে বলে করেছি। আমি আগে যেসব অনুষ্ঠানের উপস্থাপনা করেছি সবগুলোই বিশেষ বিশেষ দিবসের অনুষ্ঠান ছিলো। নিজে একজন তারকা হয়ে অন্য তারকা শিল্পীদের অংশগ্রহণের অনুষ্ঠানের উপস্থাপনা এবারই প্রথম করেছি। আশা করছি সবার ভালো লাগবে। এদিকে বিরতির পর ঐন্দ্রিলা অভিনীত ‘বিলাভড’ নাটকটি ভালোবাসা দিবসে জিটিভিতে প্রচার হচ্ছে।

রুবেল হাসান নির্দেশিত ‘বিলাভড’ নাটকটি জিটিভিতে প্রচার হবে ১৪ ফেব্রুয়ারি রাত ৮টা ৪৫ মিনিটে। এতে তার বিপরীতে আছেন জিয়াউল ফারুক অপূর্ব। উল্লেখ্য, ঢাকাই সিনেমার ‘মহানায়কব’খ্যাত নায়ক বুলবুল আহমেদের সুযোগ্য উত্তরসূরী ঐন্দ্রিলা আহমেদ বিরতির পর ৫টি নাটকে অভিনয় করেছেন। সেগুলো হলো রুবেল হাসানের ‘বিলাভড’, মাবরুর রশীদ বান্নাহর ‘সাংসারিক ভালোবাসা’, দীপু হাজরার ‘ফেইক লাভ’, পৃথ্বী রাজের ‘জল পুকুরে ডুব’ এবং সাইফের ‘আতঙ্ক’। সেই সাথে ঐন্দ্রিলা অমিতাভ রেজার নির্দেশনায় গ্রামীণফোনের বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবেও কাজ করেছেন।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *