অভিষেকের অপেক্ষায় শার্লিন

প্রথম সকাল ডটকম: ঢাকাই চলচ্চিত্রে বর্তমানে হাতে গোনার মতো অনেক নায়িকাই আছেন। কিন্তু কারো শিডিউল ব্যস্ততা, কারো খাম খেয়ালি স্বভাব, কারো দর্শক ভাগ্য মন্দ, কারো আচরণের সমস্যা- এই নিয়ে নায়িকা সংকটেই বলা যায় চলচ্চিত্র।

তাই প্রতিনিয়তই চলছে নতুন মুখ নিয়ে পরীক্ষা। কেউ কেউ সেই পরীক্ষায় পাস নম্বরটুকু পাচ্ছেন টেনেটুনে। বাকী সবই হারিয়ে যাচ্ছেন মহরতের নায়িকা উপাধি নিয়ে। তারই মধ্যে এলো আরেক নতুন নাম।

তিনি শার্লিন ফারজানা। শোবিজে যাত্রা করেছেন বেশিদিন হয়নি। এরই মধ্যে নিজেকে তিনি প্রতিষ্ঠিত করেছেন জনপ্রিয় অভিনেত্রী হিসেবে। নাটক-টেলিছবি, বিজ্ঞাপন, স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র আর মিউজিক ভিডিওতে কাজ করে শার্লিন এখন নতুন প্রজন্মের সবেচেয়ে আলোচিত নাম।

সেই আলোচনার মুখেই সিনেমাতে নাম লেখালেন তিনি। প্রথমবারের মতো বড় পর্দায় অভিনয় করছেন ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ নামের ছবি দিয়ে। মাসুদ হাসান উজ্জ্বলের পরিচালনায় এ ছবিতে নিরা চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। সিনেমায় অভিনয় প্রসঙ্গে শার্লিন বলেন, ‘বড় পর্দা মানেই কাজের বিশাল আয়োজন। সেখানে প্রত্যাশা, পরিশ্রম, সাফল্য- সবকিছুই বড় আয়োজনের।

সিনেমাতে কাজ করার আগ্রহ আমার ছিলো সবসময়। তবে জনপ্রিয়তার স্রোতে গা ভাসানো গল্প-চরিত্রে নয়। ভালো অভিনয়ের সুযোগ আছে এমন কাজই করতে চেয়েছি। অবশেষে সেই সুযোগ মিললো ‘ঊনপঞ্চাশ বাতাস’ ছবিতে। আনন্দ নিয়েই কাজ করছি। তিনি বলেন, ‘ছবিটি চলতি বছরেই মুক্তি পাবে। এখানে নায়ক-নায়িকা নয়, গল্পই হবে প্রধান চমক।

প্রথম ছবি নিয়ে আমি দারুণ আশাবাদী। ছবিতে তার সঙ্গে সহশিল্পী হিসেবে বড়পর্দায় নায়ক হিসেবে অভিষেক ঘটছে ইমতিয়াজ বর্ষণের। নির্মাতা জানান, চলচ্চিত্রটির সংগীত পরিচালনা করছেন তিনি নিজেই। চলচ্চিত্রটির জন্য একটি গান গাইবেন দুই বাংলার জনপ্রিয় একজন শিল্পী। অক্টোবরে শুরু হয়েছে এর নির্মাণ কাজ।

ইতিমধ্যে চলচ্চিত্রটির নির্মাণ কাজ শেষ করে চলছে সম্পাদনার ব্যস্ততা। এটি মুক্তি পাবে এ বছরেই। দেখা যাক, সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে যখন ঢাকাই ছবির নির্মাণেও এসেছে পরিবর্তন তখন শার্লিনের মতো রুচিশীল অভিনয় আর শিক্ষিত অভিনেত্রীদের সিনেমায় যুক্ত হওয়াটা আশাবাদী করে। দেখা যাক, সেই আশার সাফল্য কতদূর, কত মধুর হয়।

 

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *