ভৈরব রেলওয়ে কলোনীর মাতৃমন্দিরের দুটি প্রবেশ পথেই হাটু পানি

আলহাজ্ব সজীব আহমেদ, (ভৈরব): হিন্দুধর্মালম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব আসন্ন দূর্গাপূজাকে ঘিরে ভৈরবের বিভিন্ন পূজামন্ডপে শুরু হয়েছে প্রতিমাশিল্পীদের প্রতিমা তৈরির কাজ।

সরেজমিনে প্রতিমার কাজ ও পূজামন্ডপের সার্বিক তথ্য সংগ্রহ করতে গিয়ে দেখাযায় শহরের ভৈরব রেলওয়ে কলোনীস্থ আদ্যশক্তি মাতৃমন্দিরের দূরবস্থা।

শুধু আদ্যশক্তি মাতৃমন্দির নয় অন্যান্য পূজামণ্ডপেরও বিভিন্ন সমস্যা লক্ষ্য করা গেছে। চারিদিকে জলাবদ্ধতায় মন্দিরে যাওয়ার কোনো পরিবেশ নেই। মন্দিরে যাওয়ার দুটি প্রবেশ পথেই হাটু পানি ও কাঁদায় ভরপুর।

এমন অবস্থায় আদ্য শক্তি মাতৃ মন্দির কমিটির মাঝে অসন্তুস দেখা দেয়। যতই দিন এগোচ্ছে ততই জলাবদ্ধতা নিয়ে উদ্বিঘœ উক্ত মন্দির কমিটির লোকজন ও দূর্গাৎসবমূখী মানুষজনের। আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর শুরু হবে সনাতন ধর্মালম্বীদের এই উৎসব। ইতিমধ্যে বিভিন্ন পূজামণ্ডপে প্রতিমা তৈরির কাজ এগিয়ে চললেও ওই মন্দিরে প্রতিমা শিল্পীরা জলাবদ্ধার কারণে এখনো শুরু করতে পারেনি প্রতিমা তৈরির কাজ।

আদ্যশক্তি মাতৃমন্দিরের সহ সভাপতি জিতেন্দ্র চন্দ্র দাস জানান, দীর্ঘদিন ধরে মন্দিরের চারিদিকে জলবদ্ধতার কারণে পূজামণ্ডপের স্বাভাবিক কর্মকান্ড ব্যহত হচ্ছে। মন্দিরের সামনে হাটুপানির কারণে প্রতিমা কারিগররা কাজ করতে অপারগ বলে জানান তিনি। তিনি বলেন সৈয়দ নজরুল ইসলাম সড়ক সেতুর নিচ দিয়ে একটি বড় ড্রেনেজ ব্যবস্থা ছিল ওই ড্রেনটি সচল থাকাকালে মন্দির এলাকায় পানি জমেনি।

কিন্তু এখন ড্রেনটি ময়লা আর্বজনা ও বালির কারণে বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বৃষ্টির পানি নিষ্কাশন বাধাগ্রস্থ হয়। এতে করে এই জলাবদ্ধাতা সৃষ্টি হয়। এ জলাবদ্ধতা দূর করা না গেলে পূজামণ্ডপে দর্শনার্থী ও ভক্তবৃন্দরা অনেক ভোগান্তি পৌঁহাতে হবে। জলাবদ্ধতার কারণে উক্ত পূজামণ্ডপে ভক্তবৃন্দ ও দর্শনার্থীদের উপস্থিতি কমে যাবে বলে আশংকা প্রকাশ করছেন মন্দিরের লোকজন।  এ অবস্থা থেকে উত্তরণের জন্য মন্দির কমিটির পক্ষ থেকে প্রশাসন, পৌর কর্তৃপক্ষের নিকট হ¯তক্ষেপ কামনা করেন।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *