পরমাণু অস্ত্র নিষিদ্ধকরণ চুক্তিতে সই করবে বাংলাদেশ

প্রথম সকাল ডটকম: পরমাণু অস্ত্র নিষিদ্ধকরণ চুক্তিতে সই করবে বাংলাদেশ। এজন্য জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের ৭২তম অধিবেশন চলাকালীন ‘ট্রিটি অন দ্য প্রহিবিশন অব নিউক্লিয়ার ওয়েপনস’ স্বাক্ষরের প্রস্তাব অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

সোমবার প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকে এ অনুমোদন দেয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন।বৈঠক শেষে সচিবালয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম প্রেস ব্রিফিংয়ে বলেন, পরমাণু অস্ত্র নিষিদ্ধ করার চুক্তিতে ১২২টি দেশ সমর্থন জানিয়েছে।

আমাদের দেশও এর মধ্যে আছে। এই চুক্তি স্বাক্ষরের জন্য মন্ত্রিসভার অনুমোদনের প্রয়োজন রয়েছে। আগামী ৭২তম অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রী এটি স্বাক্ষর করবেন। তিনি বলেন, অধিবেশনের সাইড ইভেন্টের মধ্যে কোন একটি ইভেন্টে এটা স্বাক্ষরিত হবে।

অপরপক্ষে জাতিসংঘের মহাসচিব এতে সই করবেন। এছাড়া বাংলাদেশ ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের সঙ্গে স্বাক্ষরের জন্য ‘এয়ার সার্ভিসেস এগ্রিমেন্ট বিটুইন দ্য গভর্নমেন্ট অব দ্য পিপলস রিপাবলিক অব বাংলাদেশ অ্যান্ড দ্য গভর্নমেন্ট অব ইউনাইটেড আরব আমিরাত’ এর খসড়ার অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা।

মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘দুই দেশের বিমান চলাচল নিয়ে এই চুক্তিটি পুরনো। চুক্তিটি ১৯৮৮ সালের ৩০ মার্চ থেকে চলে আসছে। সংজ্ঞা ও শর্তে কিছু পরিবর্তন এনে এটাকে (চুক্তিটি) নতুনভাবে করা হয়েছে। সময়ে সময়ে এভাবে চুক্তি সংশোধন করা হয়ে থাকে।চুক্তি অনুযায়ী প্রত্যেক দেশ একের অধিক বিমান সংস্থাকে ফ্লাইট পরিচালনার জন্য মনোনয়ন করতে পারবে।

টেকসই উন্নয়ন অভীষ্ট (এসডিজি) অর্জনে সরকারের প্রস্তুতির বিষয়ে মন্ত্রিসভাকে অবহিত করা হয়েছে বলেও জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব। শফিউল আলম বলেন, এসডিজি বাস্তবায়নে আমাদের অগ্রগতি আশাব্যঞ্জক। আমরা পৃথিবীর অনেক দেশের তুলনায় এগিয়ে আছি আল্লাহর রহমতে।

তিনি আরও বলেন, বিগত কয়েক দিন আগে জাতিসংঘের সদর দফতরে ভলান্টারি ন্যাশনাল রিভিউ রিপোর্ট আমরা স্বপ্রণোদিত হয়ে দিয়েছি। ৪২টি দেশের মধ্যে আমরাও ছিলাম। অন্যান্য দেশের তুলনায় আমাদের দেশের কাজটি (এসডিজি অর্জন) অনেক এগিয়ে গেছে।

0 replies

Leave a Reply

Want to join the discussion?
Feel free to contribute!

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *